সিলেটে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে অভিযান চালাবে সিটি করপোরেশন

আপডেটঃ ৬:৪৯ অপরাহ্ণ | মে ৩০, ২০২১

সিলেট ব্যুরো : সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকার ঝুঁকিপূর্ণ সব ভবনে অভিযান শুরুর কথা জানিয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। রবিবার নগরভবনে দুর্যোগ ঝুঁকি মোকাবেলার বিষয়ে এক জরুরি সভায় এ কথা বলেন মেয়র।

দুই দিনে পাঁচ দফা ভূমিকম্পে সিলেটে একটি ছয় তলা ভবন হেলে পড়ার পর এই উদ্যোগ নিয়েছে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ।

আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘সিলেটে বারবার ভূমিকম্প হওয়ার বিষয়টিকে আমরা এলার্মিং হিসেবে নিয়েছি। আজ থেকেই নগরীর ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে অভিযান পরিচালনা করা হবে। যেগুলো রিমুভ করা যায়, সেগুলো দ্রুত রিমুভ করা হবে।’

ভূমিকম্পের মধ্যে শনিবার নগরীর পাঠানটুলা দর্জিবাড়ি এলাকায় আহাদ টাওয়ার নামে একটি ছয়তলা ভবন হেলে পড়ে। মেয়রের পরামর্শে রবিবার সকাল থেকে ভবনের ১১টি ইউনিটের বাসিন্দারা সরে যেতে শুরু করেন।

গত দুই দিনে পাঁচবার ছোট মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত হওয়ায় পরবর্তী সাত দিনের মধ্যে বেশি মাত্রার ভূমিকম্পের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সে অনুযায়ী দুর্যোগ মোকাবেলায় বিশেষ প্রস্তুতি নিতে রবিবার এই জরুরি সভা ডাকে সিটি করপোরেশন।

সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী বলেন, ২০০৫ সালে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞরা নগরীর ৩২টি ভবনকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছিলেন। এর মধ্যে বাসা-বাড়ি ছাড়াও কালেক্টরেট ভবন-৩, এসএ রেকর্ড রুম, কাস্টমস ও ভ্যাট অফিসসহ কয়েকটি সরকারি ভবন রয়েছে। বারবার নোটিশ দেয়ার পরও ভবনগুলো খালি করা হয়নি বলে জানান তিনি।

ঘন ঘন ভূমিকম্প হওয়ায় দুর্যোগ পরিস্থিতিতে ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনার জন্য মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে সিলেট সিটি করপোরেশনের সকল বিভাগ, শাখা ও দপ্তরের প্রতিনিধিদের নিয়ে বিশেষ সেল গঠন করা হয়েছে।

দুর্যোগ মোকাবেলায় সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে একটি হটলাইন নম্বরও (০১৯১১২৪৯৬৯৯) খোলা হয়েছে। এই নম্বরে নাগরিকরা যোগাযোগ করতে পারবেন।

সভায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সরকারের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী জরুরি ভিত্তিতে সিলেটের সব প্রশাসন, দপ্তর ও সেবা সংস্থাগুলোকে নিজ নিজ কন্ট্রোল রুম খোলার অনুরোধ জানান মেয়র।

আগামী সাত দিনের জন্য সিলেট সিটি কর্পোরেশনসহ সব জরুরি সেবা সংস্থা এবং সহযোগী সব দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বনেরও নির্দেশ দেওয়া হয় সভা থেকে।