আটপাড়ায় গৃহ শিক্ষক কতৃক নবম শ্রেনীর ছাত্রী অন্তঃসত্তা

আপডেটঃ ৬:২৭ অপরাহ্ণ | মে ৩০, ২০২১

মোনায়েম ,নেত্রকোনা : জেলার আটপাড়া উপজেলার স্বরমুশিয়া ইউনিয়নের মুদ্রাকোনা,নোয়াপাড়া গ্রামের দরিদ্র সাজ্জাদুল তালুকদারের নবম শ্রেনীতে পড়ুয়া মেয়েকে একই গ্রামের গৃহ শিক্ষক ইউনুস খাঁ (৬০) তাকে নিয়মিত প্রাইভেট পড়াত।পরে ইউনুস খাঁ সব সময় মেয়েটির দিকে কুদৃষ্টি দেয়। এর পর থেকে আস্তে আস্তে বিভিন্ন কায়দায় মেয়টির সাথে সে ভালবাসার প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে অবৈধ সম্পর্ক ঘরে তুলে। তারপর মেয়টি ৭ মাসের অন্তঃসত্তা হয়ে পরে।
মেয়েটিকে তার অভিভাবক চাপ সৃষ্টি করলে হেফাজত নেতা ইউনুস খাঁ তার গৃহ শিক্ষকের কথা শিকার করে। এ ভাবে তার সাথে বার বার সে অনৈতিক কর্মকান্ড করে থাকে। আবার সেই লম্পট ইউনুস খাঁ মেয়েটির সাথে সেই অনৈতিক কর্মকান্ড গুলো মোবাইলে ধারন করে রেখে দিয়ে মেয়েটিকে বলত প্রতিদিন তুমি আমার সাথে এই কাজ করতে হবে। মেয়েটি তার কথায় রাজি না হলে বলত আমি ফেইসবুকে এগুলো দিয়ে দিব। এ ভাবে সে মেয়েটির সাথে বার বার অনৈতিক কর্মকান্ড করে ।এলাকাবাসী সুত্রে জানা য়ায় ইউনুস খাঁ এ রকম অনৈতিক কর্মকান্ড আরো বেশ কয়েক বার ঘটিয়েছে। যা ধামাচাপায় শেষ হয়। এই ভাবে নতুন করে যখন আবার অনৈতিক কর্মকান্ড শুরু করে। তখন এলাকার মানুষের নজরে পরে য়ায়। এলাকার লোকজনের মধ্যে জানা যানি হলে গ্রামে ইউনুস খাঁ কে নিয়ে গ্রাম্য শালিশে বসে বিষয়টি সমাধান করার জন্য। সেখান থেকে লম্পট ইউনুস খাঁ সুকৌশলে পালিয়ে যায়। এ বিষয়টি নিয়ে এলাকার সকলেই ইউনুস খাঁর অনৈতিক কর্মকান্ডের সুস্থ্য বিচারের দাবী করে মুদ্রাকোনা,নোয়াপাড়া গ্রামের লোকজন। এ ব্যাপারে স্বরমুশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সাত্তার বলেন, ঘটনাটি আমি মিমাংসার জন্য চেষ্টা করেছিলাম। তবে গ্রাম্য শালিশ থেকে ইউনুস খাঁ পালিয়ে যায়। আটপাড়া উপজেলা অফিসার ইনচার্জ জাফর ইকবাল বলেন, এ বিষয়ে আমি এখনো কোন লিখত অভিযোগ পাইনি, পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

সি এন এ নিউজ/জামান