বাউফলে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে মাছের ঘের সহ ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

আপডেটঃ ৭:০৫ অপরাহ্ণ | মে ২৬, ২০২১

বাউফল প্রতিনিধিঃঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে উপকুলবর্তী পটুয়াখালীর বাউফলের চর ও নিম্না ল সমূহ। এতে শাকসবজি ও ফসলের ক্ষেত সহ ভেসে গেছে ১হাজার ২শ’ ৬৫টি পুকুর ও মাছের ঘের । এছাড়া ঝড়োবাতাসে বিধ্বস্ত হয়েছে রায়সাহেব গুচ্ছগ্রাম সহ কয়েকটি গ্রামের ২০-২৫টি আধাপাকা ও কাঁচা ঘর । ধুলিয়া, নাজিরপুর, কেশবপুর ও চর মিয়াজান এলাকার বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে ও ভাঙ্গা অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ করে প্লাবিত হয়েছে শাকসবজির ক্ষেত ও খরিপ ফসলের ক্ষেত।

উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা রাজিব বিশ^াস জানান, ক্ষয়ক্ষতির খবর নেওয়া হচ্ছে। এই মুহুর্তে সঠিক হিসাব নিরুপন করা না গেলেও প্রাথমিক ভাবে ৬টি ঝুঁপড়িঘর বিধ্বস্ত ও রায়সাহেব চরের গুচ্ছগ্রামের টিনের চালা ঘর ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। নাজিরপুর চর মিয়াজান এলাকার প্রায় ২শ’ ফুট বেড়িবাঁধ ভেঙে গেছে ।

উপজেলা কৃষিকর্মকর্তা মনিরুজ্জামান জানান, সরেজমিন মাঠ পর্যায়ে ক্ষয়ক্ষতির খোঁজ নেয়া হচ্ছে। বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে ও ভাঙ্গা অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ করে চর ও নিম্না লের মুগডাল,চিনাবাদাম, মরিচ, তিল ও মিষ্টি আলুসহ কিছু খরিপ ফসলসহ ঢেঁড়স, কুমড়া, করলা, পেঁপে, পুইশাকের মতো শাকসবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুব আলম তালুকদার জানান, ১হাজার ২শ, ৬৫টি পুকুর ও ঘেরের মাছ ভেসে গেছে।

চন্দ্রদ্বীপ ইউপির রায় সাহেব এলাকার মেম্বর সালাম শরিফ জানান, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সতর্কবার্তায় রাতে সাইক্লোন সেল্টারে কিছু লোজন আশ্রয় নিলেও সকালে তারা বসতবাড়িতে ফিরে গেছেন। জানমালের ক্ষয়ক্ষতির কোন খবর পাওয়া না গেলেও গেলেও চন্দ্রদ্বীপের ১ নম্বর ও ২ নম্বর ওয়ার্ডের মাঝামাঝি এলাকায় বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে পুকুর, মাছের ঘের ও শাকসবজীর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।