নরসিংদীতে আওয়ামী লীগ -বিএনপি কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ৬, আহত ২০

আপডেটঃ ১:২৪ অপরাহ্ণ | মে ১৭, ২০২১

এম.এ.সালাম রানা ,জেলা প্রতিনিধি, নরসিংদী : নরসিংদী সদর দুর্গম চর অঞ্চল আলোকবালী ইউনিয়ন এর মুরাদনগর গ্রামে নিজেদের আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ৬ জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে।১৬ মে, রোববার ভোরবেলায় আলোকবালীর মুরাদনগর এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় বেশ কয়েকটি বাড়িঘরে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে ।গুলিবিদ্ধ ও আহতদেরকে নরসিংদী সদর হাসপাতাল ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে আহত গুলিবিদ্ধ সজল ইসলাম টুকু (৩৫) কে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় নরসিংদী সদর উপজেলার আলোকবালী ইউনিয়ন বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ও আলোকবালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ্-র কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল এর জের ধরে আজ রোববার ভোর বেলায় আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে দুই পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। গুলিবিদ্ধরা হলেন কালু মোল্লার ছেলে আনিস (৫০), সালাম মোল্লার ছেলে সাদেক মোল্লা (৩০),আবুল হোসেনের ছেলে তপন (২০), নুরচাদ মোল্লার ছেলে আনোয়ার মোল্লা (৩০), মূলকেছ মিয়ার ছেলে মুরাদ (২৩), আব্দুর রহিমের ছেলে সজল ইসলাম টুকু তারা সবাই  মুরাদনগরের স্থায়ী বাসিন্দা বলে জানা যায়। নরসিংদী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আতাউর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আইয়ুব আলী মেম্বার ও বহিরাগত কিছু সন্ত্রাসী অতর্কিত ভাবে আমার কর্মী বাহিনীর ওপর হামলা চালায়, আমি এই হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং আপনাদের মাধ্যমে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করি। অপরদিকে আইয়ুব আলী মেম্বার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ঝগড়ার সাথে আমি জড়িত নই, রায়হান মেম্বার এর সাথে অ্যাডভোকেট আসাদের  পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এলাকার শান্তিপ্রিয় জনগণ এই হীন অপকর্মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন।
সি এন এ নিউজ/ জামান