মঠবাড়িয়ায় অবুঝ শিশুকে হত্যা: অ্যাম্বুলেন্সে রেখে পালিয়ে যাওয়া সেই বাবা-মা গ্রেপ্তার

আপডেটঃ ১:২১ অপরাহ্ণ | মে ০২, ২০২১

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় নিজ সন্তান অবুঝ শিশু হানযালাকে হত্যা করে গভীর রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে একটি অ্যাম্বুলেন্সে রেখে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগে জন্মদাতা সেই পাষন্ড বাবা ও সৎ মাকে গ্রেপ্তার করেছে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ।
প্রধান আসামী সৎ মা শাহানা বেগম (৩০) বাবা নুর নবী জুয়েল (৩৫) সাথে অভিযুক্ত চাচা বেল্লাল (৩৬) কেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন থানা পুলিশ।
শনিবার সকালে নিহত হানজালার নানী হাসি বেগম মঠবাড়িয়া থানায় এ হত্যা মামলাটি দায়ের করেন।
থানা পুলিশ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চট্টগামের ইপিজেড এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত জুয়েল পৌর শহরের ৩ নং ওয়ার্ডের স্লুইজগেট এলাকার ইউসুব মোল্লার ছেলে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, ওই শিশিুটির মা-বাবার বিচ্ছেদ হবার পরে নানীর কাছে বড় হওয়া শিশু হানজালাকে গত ১৪ এপ্রিল বেড়াতে নিয়ে যায় পাষন্ড সৎ মা শাহানা বেগম। পরে শিশুটিকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। আহত শিশুটিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে বরিশাল পাঠান। শিশুটির বাবা ও সৎ মা বরিশাল না নিয়ে গোপনে হাসপাতাল সড়কের মা ও শিশু ক্লিনিকে ভর্তি করে। ক্লিনিকেও শিশুটির অবস্থার অবনতি ঘটলে পরে সেখান থেকে ১৫ এপ্রিল সকালে শিশু হানজালাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত্যু ঘোষণা করেন।
এদিকে এম্বুলেন্সে করে শিশুটির লাশ গভীর রাতে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সামনে ফেলে রেখে পাষন্ড বাবা ও সৎ মা পালিয়ে যায়।
মঠবাড়িযা থানার ওসি মাসুদুজ্জামান বলেন, শিশুটির পাষন্ড বাবা, সৎ মা ও চাচাকে শনিবার সকালেই গ্রেপ্তার করা করা হয়েছে।