যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম তরুণীর ওপর এসিড হামলা

আপডেটঃ ১২:২৮ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৪, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইসলাম-বিদ্বেষী হামলার শিকার হয়েছেন এক মুসলিম তরুণী। ২১ বছর বয়সী নাফিয়া ইকরামের ওপর নিউইয়র্ক শহরের লং আইল্যান্ড এলাকায় এসিড ছোড়া হয়। গত ১৭ মার্চ এ হামলার ঘটনা ঘটলেও তা শুক্রবার সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, ওই দিন নাফিয়া ও তার মা তাদের গাড়ি থেকে নামতে গেল অজ্ঞাত হামলাকারী তার মুখে এসিড নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। হোফস্ট্রা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল স্টুডেন্ট নাফিয়াকে তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এসিডে পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এই মুসলিম নারীর মুখ মারাত্মকভাবে পুড়ে যায় এবং তিনি অন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হন।

যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম মানবাধিকার সংস্থা কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন্স (কেয়ার) এক বিবৃতিতে বলেছে, মুখ, চোখ, ঘাড় ও দুই হাতে পোড়া ক্ষত নিয়ে নাফিয়াকে ১৫ দিন হাসপাতালে কাটাতে হয়েছে। এসিড হামলার সময় এই মুসলিম নারী চিৎকার করলে তার মুখের মধ্যে এসিড ঢুকে গেলে তিনি শ্বাসকষ্টেও ভোগেন। তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে এসে তার বাবা-মার হাত ও বাহু আহত হয়।

পুলিশ সন্দেহভাজন হামলাকারীকে এখনো ধরতে পারেনি। তবে হামলার একমাস পর নিউইয়র্ক পুলিশ জানিয়েছে, তারা হামলাকারীকে ধরার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মুসলিম-বিদ্বেষী হামলা বেড়ে গেছে। এজন্য বিশ্লেষকরা সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বর্ণবিদ্বেষী নীতি ও আচরণকে দায়ী করেছেন।