পাকনার হাওরে ধান কাটা উৎস ও নমুনা শস্য কর্তন করেন-বিভাগীয় কমিশনার মশিউর রহমান

আপডেটঃ ৮:৪০ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৯, ২০২১

মো. শাহীন আলম, সুনামগঞ্জ:সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার ফেনারবাঁক ইউনিয়নের পাকনার হাওরে বোর ফসলী জমির ধান কাটার উৎস অনুষ্টিত হয়েছে। ফসল রক্ষা বাধ, বোর ফসলী জমি পরিদর্শন ও ধানা কাটা শুভ উদ্ভোধন করেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মো. মশিউর রহমান এনডিসি। সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মো. মশিউর রহমান বলেন, করোনা ভাইরাসের মাঝে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে হাওরের ধান কাটার শ্রমিকের কোন সংকট নেই। তিনশতাধিক কম্পাইন্ড হারভেস্ট্রার ধান কাটার মেশিন সুনামগঞ্জের হাওর গুলোতে ধান কাটতেছে। এছাড়া স্থানীয় ও বাইরের জেলার ৩ লাখ শ্রমিক গভীর হাওর এলাকায় ধান কাটতেছেন। প্রাকৃতিক র্দুযোগ না হলে চলতি মাসের মধ্যে হাওরের প্রায় শতভাগ ধান কাটা শেষ হয়ে যাবে। গেল দুই বছর যাবৎ কৃষকরা উৎপাদিত ফসলের নায্য মুল্য পাচ্ছেন। একারণে উচ্চ ফলনশীল জাতের ধানের আবাদ বেশি হচ্ছে। সরকার ও প্রশাসন হাওরের ধান কাটায় সব সময় কৃষকের পাশে রয়েছেন।
সোমবার দুপুরে পাকনার হাওরে বোর ফসলী জমি পরিদর্শন ও ধানা কাটার উদ্ধোধন শেষে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট অ লের কৃষি বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক দিলীপ কুমার অধিকারী, জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক রাশেদ ইকবাল, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মোঃ ফরিদুল হাসান, সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সবিবুর রহমান, জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল আল আজাদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম জিলানী আফিন্দী রাজু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বীনা রানী তালুকদার, উপজেলা কৃষি অফিসার মারেফুল আলম, ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু তালুকদার, জামালগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মিছবাহ উদ্দিন, সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ মাহমুদ তালুকদার সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

সিএনএ নিউজ/জামান