শিল্পী হলেই তারা নষ্ট মানুষ!: কনক চাঁপা

আপডেটঃ ১২:৪৩ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৪, ২০২১

বিনোদন প্রতিবেদক : বর্তমান বিশ্বে প্রচার, পরিচিতির অন্যতম মাধ্যম সোশ্যাল মিডিয়া। যার ফলে তারকারা উল্লেখযোগ্য হারে ঝুঁকছেন ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামসহ নানা অনলাইন যোগাযোগ মাধ্যমের দিকে। এই যেমন একসময়ের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কনক চাঁপাও সক্রিয় আছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ফেসবুকে তার ভেরিফায়েড পেজও রয়েছে।

কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় দৈনন্দিন কাজের আপডেট দিতে গিয়ে নিত্যদিনই তারকাদের পড়তে হয় নেতিবাচক কমেন্টের মুখে। যেগুলো অনেক সময় মেনে নিতে কষ্ট হয়। সেই সমস্যায় পড়েছেন বহু চলচ্চিত্রের প্লেব্যাক সিঙ্গার কনক চাঁপাও। তবে তিনি চুপ নেই। প্রতিবাদ জানিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। লম্বা একটি স্ট্যাটাস দিয়ে তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন অন্যদের মতো মুখ বুজে সহ্য করা পাত্রী নন তিনি। কনক চাঁপার সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেওয়া হলো-

‘প্রিয় ভাই-বোনেরা,আসসালামু আলাইকুম। আশা করি আপনারা ভালো আছেন। এটা আমার অফিসিয়াল এবং অফিসিয়ালি ভেরিফায়েড পেজ।ভেরিফায়েড মানে নিশ্চয়ই বোঝেন। অরিজিনাল ন্যাশনাল আইডি পাসপোর্ট জন্মনিবন্ধন আইডি দেখে ছবি দেখে পেজের ফলোয়ারের বিপুলতা যাচাই করে এই পেজ ভেরিফাই করেছে গুগল। নীল টিকচিহ্ন তার প্রমাণ। যাইহোক, আমি একজন কণ্ঠশিল্পী। কণ্ঠশ্রমিক হিসেবে পরিচয় দেই। আমি আমার পরিবারের মূল্যবোধকে সম্মান করি।’

‘আমার স্বামী একজন সংগীত পরিচালক। আমরা দুজনেই একই অঙ্গনে কাজ করি এবং স্বামী ছাড়া কখনো কোনোদিন কোনো গানের অনুষ্ঠানে যাই না। আমি ধর্মীয় অনুশাসন যতটা সম্ভব মেনে চলি। কথা হলো, আপনারা আমাকে অনেক সম্মান করেন, ভালোবাসেন, স্নেহ করেন। আমি তার জন্য আপনাদের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করি। আমি আপনাদের অন্তহীন ভালোবাসায় কৃতজ্ঞ।’

‘কিন্তু হঠাৎ হঠাৎ দু-একটা কমেন্ট আমাকে আহত করে। আপনাদের ধারণা শিল্পী হলেই তারা নষ্ট মানুষ! সবাই কি এক? আর আপনারা বিচার করার কে? আপনার বিচার কে করবে? পরকালে আল্লাহ যদি অনুগ্রহ না করেন তো আমরা, আমি আপনি এবং সে, যারা কিনা অনেক ইবাদত করেন আমরা কেউই কি আমাদের আমল দিয়ে বেহেশতে যেতে পারবো? যদি আল্লাহ স্বয়ং অনুগ্রহ না করেন তো আউলিয়াগণও দুশ্চিন্তায় থাকবেন।’

‘আমি একজন রক্ষণশীল পরিবারের কন্যা। আমার গানের সময়টুকু ছাড়া কেউ আমাকে দেখবেই না। আমার বাসায় কোনো সাঙ্গীতিক পরিবেশই নাই, নাই বন্ধুবান্ধব শিল্পী সাংবাদিকদের অপ্রোয়জনীয় আড্ডা! ছত্রিশ বছরের বিবাহিত জীবনে দুই সন্তানের জননী এখন আমি তিন জন নাতি-নাতনির নানী এবং দাদী। আপনারা আমাকে দোয়া করবেন, যেন ভালো কিছু কাজ মানুষের জন্য করতে পারি।’

‘আরেকটি কথা, আপনি যদি এতোই পরহেজগার হন তো কনক চাঁপার পেজে আপনার কাজ কী! কোরআন মজিদ নিয়ে বসুন! আমার নামাজ, আমার তসবিহ-তাহলীল, আমার কোরআন মজিদ, আমার রোজা, আমার তাহাজ্জুদ, আমার নফল ইবাদতের হিসাব আমি আর আমার আল্লাহ বুঝবো।’

এই উল্টাপাল্টা কমেন্ট করা বাদ দিন। নিজের হিসাব নিয়ে ভাবেন। কমেন্ট করার সুযোগ পেলেই বাজে কমেন্ট এর অভ্যাস ছাড়ুন। যারা বাজে কমেন্ট অথবা অযথা অযাচিত উপদেশ দেন আমি তাদের কী ভাবি জানেন? ভাবি তারা গণ্ডমূর্খ এবং পারিবারিক ভাবে শিক্ষাহীন। অতএব নিজের পরিচয় নিজে দিন, নিজের আখের নিজে গোছান।’

স্ট্যাটাসের শেষে কনক চাঁপা বলেন, তিনি তার পেজটি ডিঅ্যাকটিভ করে দেবেন বলে ভাবছেন। গায়িকার এই স্ট্যাটাসের নিচে কমেন্ট করেছেন বাংলা গানের ‘যুবরাজ’ খ্যাত গায়ক আসিফ আকবর। তিনি লিখেছেন, ‘ওরা আসলেই গণ্ডমূর্খ। ওদের ব্লক মেরে ইউটিউবের বাইরে ফেলে দেন আপা।’