রূপান্তরিত এক নারীর বদলে যাওয়ার গল্প

আপডেটঃ ২:০৬ অপরাহ্ণ | মার্চ ১০, ২০২১

বিনোদন প্রতিবেদক : দেশের প্রথম ট্রান্সজেন্ডার নারী সংবাদ পাঠক হিসেবে কাজ শুরু করে অনন্য এক নজির সৃষ্টি করেছেন তাসনুভা আনান শিশির। গত ৮ মার্চ নারী দিবসে বৈশাখী টিভিতে পেশাদার সংবাদ পাঠিকা হিসেবে কাজ শুরু করেছেন তিনি। তার এই অর্জন বাংলাদেশে ট্রান্সজেন্ডার কমিউনিটির বাস্তবতা পরিবর্তন করবে বলে বিশ্বাস তাসনুভার।

তবে এই মানুষটির চলার পথ মসৃণ ছিল না। কৈশোরে বিদ্বেষ, ঘৃণা, নানারকম হয়রানির শিকার হয়েছেন তিনি। বাধ্য হয়েছেন পরিবার ছেড়ে দূরে থাকতে। কিন্তু শত প্রতিবন্ধকতার মাঝেও চালিয়ে গেছেন পড়াশোনা। পাশাপাশি কাজ করেছেন থিয়েটারে এবং নেপথ্য কণ্ঠদাতা হিসেবে।

তাসনুভার কথায়, ‘আমি যখন একটু একটু করে বড় হচ্ছিলাম, তখন আমার পরিবর্তন ছেলেদের মতো হয়নি। আমার কণ্ঠ, বাহ্যিক গঠন পরিবর্তন হয়নি। দেখা যেত, আমি পরছি ছেলেদের পোশাক, কিন্তু হাঁটছি, কথা বলছি মেয়েদের মতো।’

‘আমি একসময় নিজের নাম বলতে পারতাম না। নির্যাতন, হয়রানিতে আতঙ্কিত থাকতাম। আমার ছেলেবেলা ছিল বিধ্বস্ত। বন্ধু ছাড়া জীবন আমার। কারো সাথে আমার যোগাযোগ নাই। কারণ আমি যোগাযোগ করতাম না। যোগাযোগ করলেই মনে হতো, আমাকে যেন হ্যারাস করছে। নানা রকম যৌন হয়রানির শিকার হয়েছি।’

সার্বিক পরিস্থিতিতে একসময় তাসনুভাকে পরিবার থেকে আলাদা হয়ে যেতে হয়। তিনি বলেন, ‘আমি ঘর ছেড়েছি এসএসসির সময়, যখন আমি দেখলাম যে আমার বাবা অসম্মানিত হচ্ছেন। আমার জন্য তাকে পাশের একজন মানুষ খারাপ কথা বলছে। তখন আমার ভালো লাগে নাই।’

‘আমার ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় সবসময় বলতো যে, আমাকে পড়াশোনাটা চালিয়ে যেতে হবে। তাহলে কোথাও না কোথাও যেতে পারব। তাই দিনের পর দিন শত অপমান সহ্য করেও পড়াশোনা চালিয়ে গেছি। আমার মাথায় ছিল যে, পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হবে। তাহলে আমার কথা বলার একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি হবে। আজ আমি সেই প্ল্যাটফর্ম পেয়েছি।’

তাসনুভা বলেন, ‘একটা সময় স্রষ্টার প্রতি রাগ ছিল যে, কেন আমি এরকম হলাম। কেন আমি সাধারণ মেয়ে বা ছেলে হলাম না। কিন্তু প্রত্যেকটা সৃষ্টির তো একটা রহস্য ও উদ্দেশ্য থাকে। সৃষ্টিকর্তা হয়তো আমাকে সৃষ্টি করে এই কমিউনিটির ভাগ্য উন্নয়নের রাস্তা করে রেখেছিলেন।’

প্রসঙ্গত, সমাজকর্ম বিষয়ে এমএ শেষ করা তাসনুভা আনান শিশির বর্তমানে ব্রাক জেমস পি গ্রান্ট স্কুলে পাবলিক হেলথ বিষয়ে মাস্টার্স করছেন। কামাল হোসেন শিশির থেকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নিজেকে তিনি তাসনুভা আনান শিশিরে রূপান্তরিত করেছেন। পেশাগত জীবনে থিয়েটার ও নেপথ্য কণ্ঠদাতা হিসেবে কাজের পাশাপাশি তিনি যুক্ত হলেন সংবাদ পাঠিকা হিসেবেও।

শুধু তাই নয়, তাসনুভা আনান শিশির ইতোমধ্যে দুটি সিনেমায় অভিনয়ের জন্যও চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। একটি হলো অনন্য মামুন পরিচালিত ‘কসাই’, অন্যটি সাইদ শাহরিয়ার পরিচালিত ‘গোল’। এর মধ্যে ‘কসাই’ ছবিতে তাসনুভা রয়েছেন ডিবি পুলিশের একজন কর্মকর্তার চরিত্রে। হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন করাই যার কাজ।