এটিএম শামসুজ্জামানের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার

আপডেটঃ ১:২৫ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২১

সি এন এ নিউজ, ডেস্ক : সদ্য প্রয়াত অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানকে সারা দেশের মানুষ অভিনেতা হিসেবেই চেনেন। তবে অনেকেরই হয়তো অজানা, ১৯৬১ সালে তার চলচ্চিত্র জীবনের শুরু হয়েছিল সহকারী পরিচালক হিসেবে। ওই বছর মুক্তিপ্রাপ্ত উদয়ন চৌধুরী পরিচালিত ‘বিষকন্যা’ ছবিতে সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

অভিনেতা পরিচয়ের বাইরে এটিএম শামসুজ্জামান একজন সফল চিত্রনাট্যকার এবং কাহিনীকারও। লম্বা ক্যারিয়ারে শতাধিক ছবির চিত্রনাট্য ও কাহিনী লিখেছেন তিনি। তার লেখা প্রথম কাহিনী ও চিত্রনাট্য ছিল ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের জন্য। ১৯৭১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবির মাধ্যমেই অভিনয়ে অভিষেক হয়েছিল চিত্রনায়ক, মুক্তিযোদ্ধা ও সাংসদ ফারুকের।

এর দুই বছর আগে কৌতুক অভিনেতা হিসেবে নিজের চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন এটিএম শামসুজ্জামান। জলছবি, যাদুর বাঁশি, রামের সুমতি, ম্যাডাম ফুলি, চুড়িওয়ালা, মন বসে না পড়ার টেবিলে চলচ্চিত্রগুলোতে তাকে কৌতুক চরিত্রে দেখা গেছে। তিনি খলচরিত্রে অভিনয় শুরু করেন সত্তরের দশকে। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ চলচ্চিত্রে খলচরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি ব্যাপক আলোচনায় আসেন।

আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ চলচ্চিত্রটি এটিএম শামসুজ্জামানের অভিনয় জীবনের মোড় পুরোপুরি ঘুরিয়ে দেয়। খল চরিত্রে তার কিছু উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হলো- অশিক্ষিত, গোলাপী এখন ট্রেনে, পদ্মা মেঘনা যমুনা, স্বপ্নের নায়ক। এছাড়াও বেশ কিছু চলচ্চিত্রে তিনি পার্শ্ব-খলচরিত্রে অভিনয় করেন। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- অনন্ত প্রেম, দোলনা, অচেনা, মোল্লা বাড়ির বউ, হাজার বছর ধরে, চোরাবালি।

যেই এটিএম শামসুজ্জামানের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল সহকারী পরিচালক হিসেবে, অভিনয় ব্যস্ততার পাশাপাশি তিনি একসময় চলচ্চিত্র পরিচালনাও করেন। ২০০৯ সালে তখনকার সুপারহিট জুটি রিয়াজ ও শাবনূরকে নিয়ে তিনি নির্মাণ করেন ‘এবাদত’ নামের একটি ছবি। সারা দেশের প্রেক্ষাগৃহে বেশ সাড়া ফেলেছিল সেই ছবি।

তবে শুধু চলচ্চিত্রে নয়, এটিএম শামসুজ্জামান তার প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে গেছেন ছোট পর্দায়ও। বহু দর্শকপ্রিয় নাটকের তিনি অভিনয় করেছেন। নাটকে তাকে হাস্যরসাত্মক চরিত্রেই বেশি দেখা গেছে। মানুষ হাসানোর এক জীবন্ত মেশিন হিসেবে মনে করা হতো এই অভিনেতাকে। তার সংলাপ বলার ধরণ, শারীরিক অঙ্গভঙ্গি- সবই দর্শকের হাসির খোরাক যোগাতো।

এটিএম অভিনীত নাটকগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো- রঙের মানুষ, ভবের হাট, ঘর কুটুম, বউ চুরি, নোয়াশাল, গরু চোর, প্রেম পিরিতি জিন্দাবাদ, ছাত্রনং অধায়নং তপ, শীল বাড়ি, ফাজিল বুইড়া, সেরা কিপ্টুস, রঙের দুনিয়া, শিয়াল পন্ডিত, ভীমরতি, বাহাদুর ডাক্তার, গাঁ গ্রামের কিসসা, ভোদাই, গদাই ডাক্তার, নাপিত, তেল মাখা চোর, মুরব্বী জামাই, শ্বশুরজী ইত্যাদি।