নরসিংদীর পলাশে ২ মাসের অন্তঃসত্তা নারী লোকলজ্জায় মানবেতর জীবন-যাপন করছে

আপডেটঃ ৭:৪৩ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৮, ২০২১

এম, এ, সালাম রানা, নরসিংদী: নরসিংদীর পলাশে প্রথমে প্রণয় পড়ে ধর্ষনের শিকার হয়ে ২ মাসের অন্তঃসত্তা নারী লোকলজ্জায় ভয়ে নিজে আড়াল করে মানবেতর জীবন যাপন করছে এক যুবতি। ধর্ষক প্রেমিক ওই যুবতিকে বিয়ে না করতে বিভিন্ন তালবাহানা করে বর্তমানে গা ঢাকা দিয়েছে।

নিযাতনের স্বিকার নারীর মা জানায়, পলাশ উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের নোয়াকান্দা গ্রামের ওসমান মিয়ার পুত্র ইসমাইল একই গ্রামের হওয়ায় তাদের বাড়ীতে আসা-যাওয়া ছিল। আসা-যাওয়ার এক পর্যায়ের তার দ্বিতীয় মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্ককে পূঁজি করে ইসমাইল তার মেয়েকে বিভিন্ন  ভাবে ভুলিয়ে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে তার ওই যুবতি গর্ভবতী হয়ে যায়। এ অবস্থায় তার মেয়ে ইসমাইলকে বিয়ের জন্য চাপ প্রয়োগ করলে সে বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করে। সেই সাথে গর্ভপাত ঘটিয়ে বাচ্চা নষ্ট করে ফেলতে বলে। এতে তার মেয়ে রাজি না হওয়ায়। ইসমাইল তাকে বিয়ে না করতে বর্তমানে গা ঢাকা দিয়েছে। এদিকে বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ওই যুবতি লোকলজ্জার ভয়ে নিজেকে আড়াল করতে সারাদিন ঘরে মধ্যে আবদ্ধ থেকে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে বলে তার মা দাবী করেছেন। মেয়ের এ অবস্থা সহ্য করতে না পেরে তার মা এলাকার ইউপি সদস্য আমজাদ হোসেনসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের স্মরণাপন্ন হয়।

এব্যাপারে গজারিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের সদস্য আমজাদ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, সামাজিক ভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে তারা চেষ্টা চালাচ্ছে। ইসমাইলের বাবা ওসমান মিয়া ৪৮ দিনের জন্য সিল্লায় গেছেন। তিনি আসলেই বিষয়টি সামাজিক ভাবে নিষ্পত্তিকে তাদের বিয়ের ব্যবস্থা করবেন।

 

সিএনএ নিউজ/জামান