ভালবাসা দিবসে আদালতের কাঠগড়ায় উঠছেন আসিফ ও ন্যান্সি

আপডেটঃ ৬:২৫ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৪, ২০২১

বিনোদন ডেস্ক : সংগীত শিল্পী আসিফ ও ন্যান্সির বাকযুদ্ধ গড়ালো আদালত পর্যন্ত। এ ব্যাপারে ডিবিসি নিউজের কাছে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন দুই তারকা। দুজনেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন আইনী লড়াইয়ের।
বিতর্কের শুরু টেলিভিশন টকশোর মধ্য দিয়ে। সাক্ষাৎকারে ন্যান্সিকে পাগল বলায় গতবছরের জুলাই মাসে আসিফ আকবরের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ দায়ের করেন নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি।
গত ৩০ ডিসেম্বর আদালতের সমন পান আসিফ। দুই তারকার স্নায়ুযুদ্ধ গড়ায় আদালতের কাঠগড়ায়। সংগীতাঙ্গনের দুই শিল্পী মামলা নিয়ে চাঞ্চল্য শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।
নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি বলেন, উনি অনেকদিন ধরেই আমাকে নিয়ে অপ্রাসঙ্গিক কথা বলে আসছেন। একজন মানুষ বা নারী হিসেবে আমি এই অসম্মান নিতে পারি নাই।
অন্যদিকে, ন্যান্সির অভিযোগকে ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমূলক বলে মন্তব্য করেন আসিফ। বিভিন্ন সময়ে ন্যান্সীকে মানসিক ও আর্থিকভাবে সহায়তা করেছেন বলেও দাবি করেন তিনি।
আসিফ আকবর বলেন, ন্যান্সি যখন মানসিকভাবে অসুস্থ ছিল, দুঃসময় ছিল তখন আমি তার পাশে ছিলাম। এগুলো সব সাজানো মামলা। তার সাথে একটি চক্র আছে।
অন্যদিকে ন্যান্সির দাবি আসিফের কাছ থেকে কোন সাহায্য নেননি তিনি। আসিফের বিরুদ্ধে সচেতনভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগ তোলেন তিনি।
নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি বলেন, উনি পাঁচ লাখ টাকার যে কথা বলেছে তা আমাকে অনেক ছোট করেছে। আমি তার কাছে থেকে কোন টাকা নেইনি। উনি বলেছে উনার কাছে টাকা দেয়ার বাউচার আছে,তাহলে উনি সেটা দেখাক।
আগামী ১৪ ডিসেম্বর বিশ্বভালবাসা দিবসের দিন আদালতের কাঠগড়ায় উঠবেন বাংলা রোমান্টিক গানের দুই তারকা শিল্পী।
আসিফ আকবর বলেন, এটি খুবই দুঃখজনক ঘটনা। মামলার তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি দেয়া হয়েছে। এখন এটাকে আইনিভাবেই মোকাবেলা করতে হবে।
নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি বলেন, পুলিশের তদন্ত যখন এটি প্রমাণ হয়েছে আমি মনে করি এটাই আমার পাওয়া। পুলিশ তদন্ত করেই এ ঘটনার সত্যতা পেয়েছে।
এর আগেও আসিফের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কারণে মামলা হয়েছে। সেগুলো এখনো বিচারাধীন। আসিফের তথ্য অনুযায়ি মামলার সংখ্যা ১০টি।