বাউফলে দিয়ারা জরিপ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

আপডেটঃ ৬:৩৪ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ৩০, ২০২০

বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃপটুয়াখালীর বাউফলে দিয়ারা জরিপ বাতিলের দাবিতে তিন সহস্রাধীক পরিবার মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে। শুক্রবার সকালে উপজেলার কেশবপুর ইউপির মমিনপুর সড়কে তিন সহস্রাধীক নারী পুরুষের উপস্থিতিতে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। এনায়েত হোসেন ঝন্টুর সভাপতিত্বে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্য বাদশা মিয়া, কামাল খান, আঃ লতিফ মোল্লা,আবুল হোসেন মোল্লা, খাদিজা বেগম ও লাকি বেগম।
ওই সময় বক্তারা বলেন, দিয়ারা জরিপ হলো দরিয়া (নদী) সম্পর্কিত জরিপ। ভূমি জরিপ আইন বিধিমতে, নদী বা সমুদ্র গর্ভে চর সৃষ্টি হলে তা জরিপের জন্য দিয়ারা জরিপ করা হয়। দিয়ারা সেটেলমেন্ট অফিসারের নেতৃত্বে ৪টি (রাজশাহী, নরসিংদী, চট্রগ্রাম ও বরিশাল) কয়েকটি আ লিক অফিস ও ক্যাম্পের মাধ্যমে সারা দেশের সুনির্দিষ্ট কিছু মৌজায় এ জরিপ কাজ পরিচালিত হয়। কিন্তু কেশবুপর ইউনিয়নের মমিনপুর মৌজায় কোন নদী ভাঙ্গনের বাড়তি বা কমতি জমি নেই। এখানে শতশত বছর ধরে মানুষ বসবাস ও ফসল চাষাবাদ করে আসছে। সিএস, আরএস ও এসএ জরিপ ম্যাপ সঠিকভাবে হওয়ায় সেটাই চলমান ও কার্যকর রয়েছে। সেখানে নতুন করে দিয়ারা জরিপ করার কোন প্রশ্নই আসে না। সম্প্রতি বাউফল মমিনপুর জেএলনং ৫৮ মৌজার সিএস ,আরএস ও এসএ খতিয়ানের কার্যক্রম চলমান। ভুমি মন্ত্রনালয় ও জরিপ অধিদপ্তর থেকে অনুমোদনকৃত ১৪৮ জেএল মৌজা চর মমিনপুর এর সাথে সংযুক্ত করে জেএল নং ৫৮ মৌজা দেশ মমিনপুর অংশ এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি ও দিয়ারা সেটেলমেন্টর কর্মকর্তা ও কর্মচারীর যোগসাজেস জরিপ কার্যক্রম শুরু করেন। ওই সময় বরিশাল বিভাগীয় দিয়ারা জরিপ কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দের কাছে চাহিদা অনুযায়ী উৎকোচ না পাওয়ায় জরিপের সময় ৮০ভাগই ভুল করে একজনের পৈত্রিক রের্কডীয় জমি অন্যজনের নামে রেকর্ড করেন। বিষয়টি জানাজানি হলে চলমান কার্যক্রম ফেলে রেখে জরিপে আসা অবশিষ্ট কর্মককর্তা কর্মচারীরা স্থানীয়দের তোপের মূখে রাতের আধাঁরে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে তারা বরিশাল দিয়ারা সেটেলমেন্ট অফিসে বসে কার্যক্রম পরিচালনা করেন। আয়োজিত মানববন্ধন শেষে বক্তারা সাংবাদিকদের জানান, সরজমিনে দিয়ারা জরিপ বাতিল করে জোনাল জরিপ কার্যক্রম শুরু করলে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব। এ এলাকার জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ দ্রুত নিস্পত্তি না হলে ভুক্তভোগি পরিবারের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে শত শত প্রাণহানির আশংকা রয়েছে। এ বিষয়ে বাউফল উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আনিছুর রহমান বালি বলেন, স্থানীয়রা ডিসি মহোদয়ের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ডিসি মহোদয়ের নির্দেশে সরেজমিন তদন্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

সিএনএ নিউজ/নাহা