বাউফলে প্রশাসনের চোখ এড়িয়ে অবাধে চলছে মা ইলিশ শিকার

আপডেটঃ ৮:২০ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৩, ২০২০

বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধিঃপটুয়াখালীর বাউফলে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রশাসনের চোখ এড়িয়ে অবাধে চলছে মা ইলিশ শিকার। বিভিন্ন বাহিনির সমন্বয়ে অভিযান অব্যাহত থাকলেও থেমে নেই ইলিশ শিকার। দুপুরের পর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত নির্বিঘ্নে চলছে ইলিশ শিকার। মা ইলিশ শিকারের পর মাছ স্থানীয় কিছ ুঅসাধু ব্যবসায়ীদের হাতে তুলে দেন। এর পরে মোবাইলের মাধ্যমে চুক্তি করে রাতের আঁধারে পৌছে দেয়া হয় গন্তব্যে। অনেকে ন্যায্যমূল্যে কিনে বাসার রেফ্রিজারেটরে সংরক্ষণ করে রাখছেন।গড়ে প্রতিটি মা ইলিশ ৩০০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
শুক্রবার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে চলছে মাছ শিকারের মহোৎসব। চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের কৃষক আমির আলী বলেন, ‘প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে দেদারসে চলছে মা ইলিশ শিকার। চন্দ্রদ্বীপ, কেশবপুর, ধুলিয়া, নাজিরপুর ও কালাইয়া ইউনিয়নের বেশীরভাগ জেলে মা ইলিশ শিকার অব্যাহত রেখেছেন। এদেরকে আবার শেল্টার দিচ্ছেন স্থাণীয় প্রভাবশালী কতিপয় মাছ ব্যবসায়ী।’
জেলেদের সূত্র জানায়, তেঁতুলিয়া নদীর একাধিক পয়েন্টে মা ইলিশ শিকার চলছে। বিশেষ পদ্ধতিতে জাল পেতে শিকার করা হচ্ছে মাছ।
কালাইয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক ফয়জুল হক ভূইয়া বলেন, তেঁতুলিয়া নদীতে অভিযান চালিয়ে এখন পর্যন্ত আমরা ২৫ জন জেলেকে আটক করেছি। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আটক জেলেদেরকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ অহেদুজ্জামান বলেন, নিষেধাজ্ঞা শুরুর পর থেকে বিভিন্ন বাহিনীর সমন্বয়ে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। উপজেলা মৎস্য বিভাগে আধুনিক নৌযান ও জনবল সংকটের কারণে তেঁতুলিয়া নদীতে সঠিক সময়ে অভিযান পরিচালনা করা যাচ্ছে না।