জামালপুরের বকশীগঞ্জে আ.লীগ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত

আপডেটঃ ৭:০৯ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৮, ২০২০

জামালপুর সংবাদদাতা: এলাকায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে জামালপুরের বকশীগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনায় সড়ক অবরোধ করা হয়েছে।
রবিবার (১৮ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন।
পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এ ঘটনায় বকশীগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
জামালপুর-১ আসনের এমপি আবুল কালাম আজাদ এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের বিরোধের জের ধরে দলীয় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে বকশীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগ মুজিববর্ষ উপলক্ষে আনন্দ মিছিল বের করে। মিছিলটি উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে বের হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মালিবাগ আওয়ামী লীগ অফিস অতিক্রম করার সময় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা মিছিলে হামলা চালায়। এ সময় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়।
হামলার ঘটনার প্রতিবাদে পৌর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা প্রধান সড়ক অবরোধ করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনায় পুরো উপজেলায় দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
বকশীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আগা সাইম বলেন, বিএনপি থেকে আসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ তার গুণ্ডা বাহিনী দিয়ে আমাদের শান্তিপূর্ণ মুজিব জন্মশতবার্ষিকীর আনন্দ মিছিলে হামলা চালিয়েছে।
তিনি বলেন, নুর মোহাম্মদ ২০০৩ সালে জাতীয় নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে অংশ নেন। সে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগ করছেন। আবারও সেই পদে থাকার পাঁয়তারা করছেন। তাকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান।
উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুম্মান তালুকদার হামলার ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, আমরা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ঘোষিত ধর্ষণের বিরুদ্ধে কর্মসূচি পালন করেছি।