রৌমারতে গাছবাড়ী গ্রামের বাঁধ ভেঙ্গে গাছবাড়ী হাট-বাজার তছনছ হয়েগেছে

আপডেটঃ ১১:৩০ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৫, ২০২০

মোস্তাফিজুর রহমান তারা, রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: রৌমারীতে দুদিন বৃষ্টি না হলেও বন্যার পানির চাপ অব্যাহত রয়েছে। কুড়িগ্রামের ১৫টি নদ-নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রৌমারী কুড়িগ্রাম জেলার উত্তরা লীয় সীমান্তবর্তি এলাকা। এঅ লে থেমে পানি বৃদ্ধির মূল কারণ, অ লটি ভারত লাগোয়া । রৌমারী ও উলিপুরের উত্তর সীমান্তে ১০৪৭ থেকে ০১৫২ বাংলাদেশ ভারত সীমান্ত উন্মুক্ত। উভয় দেশের মধ্যে কোন সীমান্ত বাঁধ বা সড়ক নেই। উক্ত পথে ভারত থেকে বয়ে এসেছে ব্রহ্মপুত্রের একটি শাখা নদী। যে পথে অতিসহজে ভারত থেকে বয়ে আসে পাহাড়ী ঢল । পাহাড়ী ঢলের কারণে এলাকাটি দূত প্লাবিত হয়।
গতকাল বানের পানির প্রচন্ড চাপে দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের গাছবাড়ি বাজারটি বাঁধ ভেঙ্গে তছনছ হয়ে যায়। বাজারের দোকান পাট ভাঙ্গনের মুখে পড়ে গভীর খাদে বিলীন হয়ে যায়। এতে ক্ষুদ্র ব্যাবসাযীরা সর্ব শান্ত হতে বসেছে। এব্যাপারে মোখলেচুর , তোফাজ্জল, রবিউল, জয়নাণ, জহুল, হাফিজ জানান, নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের প্রচন্ড চাপে বাঁধ ভেঙ্গে আমাদের দোকান ঘর মালামালসহ ভাঙ্গনের কবলে গভীর খাদে নিমর্জ্জিত হয়। একেত করোনা আতংক তার পরে বন্যার তান্ডব। এমন পরিস্থিতিতে চরম দুশ্চিন্তায় দিনাতিপাত করছি। এব্যাপারে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল-ইমরান বলেন, যাদের দোকানপাট বাঁধ ভাঙ্গনের কবলে তলিয়ে গেছে তাদের জন্য ত্রাণের ব্যাবস্থা করা হবে।