ব্রেকিং নিউজঃ

গণমাধ্যম কর্মীদের জন্য নতুন বেতন কাঠামো ও নববর্ষ বোনাসের দাবি বিএফইউজে’র

আপডেটঃ ২:১৯ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৬, ২০১৫

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) গণমাধ্যম কর্মীদের জন্য নতুন বেতন কাঠামো ও নববর্ষ বোনাস ঘোষণার দাবি জানিয়েছে।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বিএফইউজে’র জাতীয় নির্বাহী পরিষদের সভায় গৃহীত প্রস্তাবে সরকারি কর্মচারীদের জন্য নয়া বেতন কাঠামো ও নববর্ষ বোনাস ঘোষণার সরকারি সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানানো হয়। যেহেতু গণমাধ্যমকর্মীরা একই রাষ্ট্র কাঠামো ও একই বাজার ব্যবস্থার মধ্যেই বসবাস করেন সে জন্য অবিলম্বে গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য নবম বেতন বোর্ড রোয়েদাদ এবং এই রোয়েদাদ ঘোষণা পর্যন্ত অন্তবর্তী মহার্ঘ্য ঘোষণার জন্য বিএফইউজে’র সভায় সরকারের প্রতি দাবি জানান হয়।

ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমকর্মীদের জন্যও নতুন রোয়েদাদ যাতে কার্যকর করা যায় সে জন্য ইলেকট্রনিক মাধ্যমের জন্য অবিলম্বে পৃথক বেতন কাঠামো ঘোষণার দাবি জানান হয়।

সভায় আগামী ১লা বৈশাখেই যাতে গণমাধ্যমকর্মীরা নববর্ষ বোনাস পেতে পারেন সে বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য গণমাধ্যমের মালিকদের প্রতি আহবান জানানো হয়।

১০ অক্টোবর শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএফইউজে’র নির্বাহী কমিটির সভায় এসব প্রস্তাব গৃহীত হয়।

সকল সংবাদপত্রে ৮ম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ কার্যকর করার দাবি জানিয়ে সভায় যেসব সংবাদপত্রে ৮ম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ কার্যকর করা হয়নি, বিভিন্ন সরকারি কমিটি থেকে সেসব সংবাদপত্রের মালিক সম্পাদককে প্রত্যাহার করার পাশাপাশি তাদের সংবাদপত্রে ক্রোড়পত্র বন্ধ, এক্রিডিটেশন কার্ড বাতিলসহ সকল সরকারি সুযোগ সুবিধা বন্ধের দাবি জানানো হয়।

সভায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সাংবাদিক-কর্মচারী ছাটাই বন্ধ করার দাবি জানিয়ে নিয়মিত বেতন-ভাতা পরিশোধসহ বকেয়া সকল পাওনা পরিশোধ করতে বলা হয়।

সভায় বিভিন্ন অঙ্গ ইউনিয়নের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সাংবাদিক ছাটাই, কম বেতন নির্ধারনসহ বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের বিষয়ে কোন কোন প্রতিষ্ঠানে সুবিধাভোগী কতিপয় সাংবাদিক কর্মচারীরাই সাংবাদিক কর্মচারীদের স্বার্থের বিরুদ্ধে অবস্থান নিচ্ছেন। প্রতিষ্ঠানভিত্তিক এই সব দালালদের চিহ্নিত করার পাশাপাশি তাদের অবাঞ্চিত ঘোষণার বিষয়েও সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় আবারও সাগর-রুণীসহ সকল সংবাদিক হত্যাকান্ডের বিচার নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়। প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধনসহ, গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য ১৯৭৪ সনের আইনটি আধুনিকায়ন করে সংসদে পাস করার দাবি জানান হয়।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, বিএফইউজে নির্বাহী পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ নভেম্বর । এর আগে ১৩ নভেম্বর ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে।

বিএফইউজে’র সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুলের সভাপতিত্বে মহাসচিব আবদুল জলিল ভূঁইয়া সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন। আলোচনায় অংশ নেন ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, নারায়নগঞ্জ, ময়মনসিংহ, কক্সবাজার, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ।

নির্বাচন পরিচালনার জন্য সিনিয়র সাংবাদিক আবু তাহেরকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। অঙ্গ সংগঠনগুলোকে আগামী ২৫ অক্টোবরের মধ্যে ভোটার তালিকা, কাউন্সিলর তালিকা ও গঠণতন্ত্র সংশোধন প্রস্তাব মহাসচিবের কাছে পাঠাতে হবে।