বাউফলে অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে ভূয়া এনজিও লাপাত্তা

আপডেটঃ ৭:৩৯ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৬

মোঃ হুমায়ুন কবির, সি এন এ নিউজ,বাউফল ,পটুয়াখালী:পটুয়াখালীর বাউফলে সমাজ কল্যাণ সংস্থা নামের একটি ভূয়া এনজিওর কর্মকর্তারা ঋণ দেয়ার আশ^াস দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার প্রতারণার শিকার কয়েকশ নারী-পুরুষ বাউফলের গোলাবাড়ি এলাকায় ওই অফিসের সামনে বিক্ষোভ করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, প্রায় ১ মাস আগে বাউফলের গোলাবাড়ি ব্রিজের উত্তর পাশে স্থানীয় দাতের চিকিৎসক জাকির হোসেন এর বাড়ি ভাড়া নেয় সমাজ কল্যাণ সংস্থা নামের একটি এনজিওর কর্মকর্তারা। এরপর তারা সাধারণ মানুষকে ঋণ প্রদানের আশ^াস দিয়ে সঞ্চয় কার্যক্রম শুরু করে। নাজিরপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ফজলু খানের স্ত্রী লাল মতি জানান, ৫০ হাজার টাকা ঋণ দেয়ার কথা বলে ওই এনজিওর মাঠকর্মী তার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা জামানত নেয়। এর আগে সমিতির সদস্য হওয়ার জন্য প্রত্যেকের কাছ থেকে ভর্তি ফি নেয়া হয় ১০০ টাকা। একই অভিযোগ করেন প্রতিবেশী শিল্পী বেগম, হোসনেয়ারা, সোবাহান খাঁন, সেতারা বেগম, হাবিব গাজী ও রাসেল খান। এভাবে বাউফলের মদনপুরা, নাজিরপুর, দাসপাড়া, কনকদিয়া ও সূর্যমণি ইউনিয়নের সহ¯্রাধিক মানুষের কাছ থেকে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নেয় তারা। বৃহস্পতিবার ঋণ নেয়ার জন্য সদস্যরা ওই অফিসে এসে তালাবদ্ধ দেখে হতাশ হয়ে পড়েন। অফিস গুটিয়ে কর্মকর্তারা চলে যাওয়ার খবর পেয়ে প্রতারিত কয়েকশ নারী-পুরুষ সেখানে এসে বিক্ষোভ করতে থাকেন। সদস্যদের পাশ বই ঘেঁটে দেখা যায়, সমাজ কল্যাণ সংস্থার প্রধান কার্যালয় সিটি কমপ্লেক্স, সারকুলার রোড, দিলকুশা, মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা ঢাকা লেখা রয়েছে। কিন্তু প্রধান কার্যালয়ের হোল্ডিং নম্বর পাশ বইতে লেখা নেই। নাজিরপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের সৃজন খান বাড়ির আজাহার খানের ছেলে লিমন খান বলেন, তার বাড়ির পাশে দোকান রয়েছে। নিজে বিয়ে করেননি। তার বোন সুখি আক্তারকে ওই এনজিওর সদস্য করে ঋণের আবেদন করেন। সবার মতো তিনিও ৫ হাজার টাকা জামানত প্রদান করেন। নিজের কাছে টাকা না থাকায় ঋণ পেয়ে পরিশোধ করে দেয়ার শর্তে প্রতিবেশী বড় ভাই জসীমের কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা ধার করি। বৃহস্পতিবার ঋণ দেয়ার তারিখ দেয় ওই এনজিওর মাঠকর্মী। কিন্তু অফিসে ঋণ আনার জন্য গিয়ে জানতে পারি কর্মকর্তারা পালিয়ে গেছেন। ওই বাড়ির মালিক জাকির হোসেন জানান, ৪ জন কর্মকর্তা সমাজ কল্যাণ সংস্থার পরিচয় দিয়ে বাড়ি ভাড়া নেয়। কিন্তু প্রতারক কর্মকর্তাদের নাম ঠিকানা তিনি বলতে পারেননি। এ বিষয়ে বাউফলের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে আইণানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ###