বেতন-বোনাসের দাবিতে গার্মেন্টস শ্রমিকদের অবস্থান কর্মসূচি

আপডেটঃ ২:৩০ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৮, ২০১৬

রাজীব হাসান তপু,সিএনএ নিউজ ঢাকা: হানীওয়েল গার্মেন্টসের শ্রমিকরা বেতন-বোনাসের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে।

শ্রমিকরা অভিযোগ করছেন, কারখানার মালিক মশিউর রহমান জয় বার বার শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েও তাদের পাওনা টাকা দিচ্ছেন না। ফলে শ্রমিকরা বাসা ভাড়া, সন্তানদের স্কুল ফি দিতে পারছেন না।

জাতীয় গার্মন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের ব্যানারে  রোববার দুপুরে বেলা ১২টা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচি শুরু হয়।

অবস্থান কর্মসূচিতে হানীওয়েল গার্মেন্টসের অপারেটর শাহনাজ বেগম বলেন, ‘গত রোজার ঈদ থেকে মালিক আমাদের বেতন বোনাস দেয়নি। ওই সময় আন্দোলন করেও আমরা আমাদের ন্যায্য পাওনা নিতে পারিনি। কিছু দিন পরে আরেকটি ঈদ। এই দুই ঈদের মাঝে বাসা ভাড়া, সন্তানের স্কুল ফি, দোকানের বাকির টাকা দেওয়া হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘সামনে ঈদ। এর সঙ্গে পাওনাদারদের চাপ। এসব কারণে আমরা কাজ ফেলে পাওনা আদায়ের জন্য রাজপথে নেমেছি। যদি ঈদের আগে মালিক আমাদের পাওনা টাকা না দেন, তাহলে আমাদের মরণ ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না।’

প্রতিষ্ঠানের সুপারভাইজার দুলাল হোসেন বলেন, ‘বহু আন্দোলন করেছি। বিজিএমইএর কাছে স্মারকলিপিসহ দুবার ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেছি। কিন্তু মালিক আমাদের পাওনা টাকা দেয়নি। এজন্য জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান নিয়েছি।’

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক জোট জানায়, হানীওয়েল গার্মেন্টসে সাড়ে ছয়শ’ শ্রমিক কাজ করেন। এদেরকে গত মে, জুন ও জুলাই মাসের বেতন-ভাতা ও ওভারটাইম পরিশোধ করা হয়নি।

রোজার ঈদের শেষে মালিক ১৩ এবং ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে বেতন ভাতা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিলেও তিনি তার প্রতিশ্রুতির বরখেলাপ করেন। ১৯ জুলাই শ্রমিকরা বিজিএমইএ ভবন ঘোরাও করলে কারখানার মালিক পর দিন টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন। ২০ জুলাই  বেতন না দিলে ২৪ জুলাই ওই কারখানার শ্রমিকরা শ্রম মন্ত্রণালয় বরাবর স্মরকলিপি দেন।

শ্রম মন্ত্রণালয় কোনো পদক্ষেপ না নিলে ১২ আগস্ট মালিকের বাড়ি ও প্রধান কার্যালয় ঘোরাও করা হয়। পরে ২২ আগস্ট মালিক বেতন ভাতা পরিশোধের জন্য বিজিএমইএ পুনরায় প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু ফের মালিক শ্রমিকদের টাকা পরিশোধ করেননি।