মদনে নেশা করতে বাধা দেওয়ায় প্রতিবেশীকে মারধরের অভিযোগ

আপডেটঃ ৯:০০ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৯, ২০২২

মদন (নেত্রকোনা) সংবাদদাতা : নেত্রকোনা মদন উপজেলার আলশ্রী গ্রামের খান বাড়িতে নেশা করতে বাধা দেওয়ায় তিনজন আহত।
শুক্রবার (২৯ জুলাই) এ ঘটনা ঘটে।
আহতরা হলেন- মৃত আশিদ খাঁনের ছেলে বাচ্চু খাঁন(৫২), বাচ্চু খাঁনের স্ত্রী রহিমা খাতুন(৩২), বাচ্চু খাঁনের ছেলে রয়েল খাঁন(১৯)। তারা মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছে।
আহত বাচ্চু খাঁন দৈনিক ভোরের ডাক সংবাদদাতাকে জানান, আমার ভাগিনা কামরুল (৩৫) ও আমার ভাই বাবলু খাঁন (৩২) প্রতিনিয়তই মদ, গাঁজা ও বাবা ট্যাবলেট খায়। তারা আমার প্রতিবেশী হওয়ায় আমাদের খুব অসুবিধা হয়। আমি তাদের আগেও নিষেধ করেছি। আজ সকালে নিষেধ করতে গেলে আমায় অকাট্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং কামরুল উত্তেজিত হয়ে রামদা দিয়ে আমাকে কোপ দিতে চাইলে আমার স্ত্রী বাধা দিলে, আমার স্ত্রীর মাথায় রামদার কোপ লাগে।
আমার ছেলে রয়েল খাঁন আমাদের বাঁচাতে এলে, কামরুলের ভাই রানা মিয়া( ৪৩) আমার ছেলের বাম হাতে রড দিয়ে আঘাত করে এবং এই সুযোগে কামরুল রামদা দিয়ে আমার বাম পায়ে আঘাত করে। বাবলুর হাতে থাকা রড দিয়ে আমার ডান হাতে আঘাত করে। আমরা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তারা তিনজন আমাদেরকে কিল, ঘুষি, লাথি মারতে থাকে। এক পর্যায়ে বাবলু আমার ছেলের বাম হাতে কামড় দিয়ে বসে। আমারা এর সঠিক বিচার চাই।
বাবলু খাঁন এ বিষয়ে কিছু বলতে না চাইলেও তবে ঝগড়া হয়েছে বলে স্বীকার করেন। কামরুল মিয়া জানান, কলাগাছ নিয়ে মূলত ঝগড়া সৃষ্টি। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দস্তাদস্তি ও কিল-ঘুসি হয় এর চেয়ে বেশি কিছু ঘটেনি।
এ বিষয়ে মদন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম জানান, এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।