সোনারগাঁওয়ে শিশু হত্যায় ভাই, ভাবিসহ আটক ৩

আপডেটঃ ৬:৪২ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৮, ২০২২

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে নিখোঁজের দুইদিন পর হুমায়ারা (৮) নামের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) সকালে পিরোজপুর ইউনিয়নের নয়াগাঁও এলাকায় নদীর পাশের ঝোপ থেকে ওই শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় বৈশাখী আক্তার, সজিব ও সেতারা বেগম নামের ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
নিহত হুমায়ারা উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের মৃধাকান্দি গ্রামের দুলাল মিয়ার মেয়ে। সে নাগেরগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী।
জানা যায়, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের মৃধাকান্দি গ্রামের দুলাল মিয়ার মেয়ে হুমায়রা গত মঙ্গলবার সকাল ১১ টা থেকে নিখোঁজ ছিল। বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করে তার কোন সন্ধান না পেয়ে তার বাবা ওইদিন সন্ধ্যায় সোনারগাঁও থানায় সাধারণ ডায়রী করেন। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের নয়াগাঁও এলাকায় নদীর তীরবর্তী স্থানে মাটি চাপা দেওয়া অবস্থা নিখোঁজ হুমায়রার লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।
এদিকে পরিবারের লোকজন নিহত হুমায়রার ভাবি বৈশাখী আক্তারের এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ তুললে পুলিশ বৈশাখী আক্তারকে আটক করে। এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে আরো কেউ জড়িত থাকার সন্দেহ করেছেন নিহতের মা।
সোনারগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, ধারণা করা হচ্ছে শিশুটি হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় এখনো কোনো অভিযোগ বা মামলা হয়নি। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নিহতের ভাবি  বৈশাখী, ভাই সজিব ও বৈশাখীর মা সেতারা বেগমকে আটক করা হয়েছে।