‘শিবশঙ্কর হালদার’ পরিচয়ে পশ্চিমবঙ্গে অবস্থান করছিলেন পিকে হালদার

আপডেটঃ ৮:৫৭ অপরাহ্ণ | মে ১৪, ২০২২

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশের আর্থিক খাতের আলোচিত জালিয়াত প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পিকে হালদারকে গ্রেফতার করেছে ভারত সরকারের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। শনিবার (১৪ মে) দুপুরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অশোকনগর থেকে তাকেসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
পিকে হালদার এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ছিলেন। তার বিরুদ্ধে চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় সাত হাজার কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ অনুসন্ধান করছে দুদক। অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠার পরই দেশ থেকে পালিয়ে যান পিকে। ভারতের সরকারি পরিচয়পত্র সংগ্রহ করে ‘শিবশঙ্কর হালদার’ পরিচয়ে পশ্চিমবঙ্গে অবস্থান করছিলেন তিনি।
শনিবার ভারতের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) তাকে গ্রেফতারের পর গণমাধ্যমকে জানায়, কয়েক কোটি টাকার আর্থিক জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পিকে হালদার ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করা হয়।
ইডি জানায়, গ্রেফতার ছয়জনের মধ্যে ৩ জন বাংলাদেশি। এই ৩ জনের মধ্যে রয়েছেন- পিকে হালদার, প্রীতিশ কুমার হালদার ও প্রাণেশ কুমার হালদার।
পশ্চিমবঙ্গে পিকে হালদারের সহযোগীদের সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন জায়গাতেও এই অভিযান চালানো হয় বলে জানিয়েছে ইডি।
ইডি এক বিবৃতিতে জানায়, পিকে হালদার পশ্চিমবঙ্গ থেকে রেশন কার্ড, ভারতীয় ভোটার আইডি কার্ড, স্থায়ী অ্যাকাউন্ট নম্বর ও আধার কার্ডের মতো বিভিন্ন সরকারি পরিচয়পত্র সংগ্রহ করেছেন। তিনি জালিয়াতির মাধ্যমে এসব পরিচয়পত্র সংগ্রহ করে শিবশঙ্কর হালদার নামে নিজেকে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে পরিচয় দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে অবস্থান করছিলেন। তার অন্যান্য সহযোগীরাও একই কাজ করেছেন।