ব্রেকিং নিউজঃ

বাউফলে সিঁড়ি থেকে পরে শিশু শিক্ষার্থীর মৃত্যু

আপডেটঃ ১০:৩৫ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৬, ২০২১

বাউফল (পটুয়াখালী)প্রতিনিধি :  শিক্ষকের অবহেলায় পটুয়াখালীর বাউফলে আরাফাত (৮) নামে এক শিশু শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সে ওই উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউপির মাহাশ্রাদ্দি গ্রামের মো. হাচান প্যাদার ছেলে। সে কাশিপুর আল-ইয়াসিন শিশু সদন এতিমখানা ও মারকাযুল নুর ইয়াসিন হাফিজিয়া মাদরাসায় পড়তো। গত মঙ্গলবার রাতে  ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।

জানা গেছে, গত রোববার (২২ আগস্ট) বিকেলে মাদরাস ভবনের তৃতীয় তলার রেলিংবিহীন সিঁড়ি বেয়ে নামার সময় পড়ে গিয়ে মাথায় প্রচন্ড আঘাত প্রাপ্ত হয় আরাফাত। প্রথমে গোপন থাকলেও অবস্থার অবনতি হলে একদিন পর সোমবার পরিবারের সদস্যরা জানতে পারে। পরে, তাকে পটুয়াখালী জেলা সদরের এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার উন্নতি না হলে সেখান থেকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (শেবাচিম) ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে মঙ্গলবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশুটি।শিশু শিক্ষার্থী আরাফাতের দাদা নুর হোসেন প্যাদাসহ আত্মীয়রা অভিযোগ করে দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ৭-৮ মাস আগে আরাফাতকে মাদরাসায় ভর্তি করা হয়। হিফজ বিভাগে ১৫ পাড়া মুখস্ত করছিল সে। অপর শিশু শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মাদরাসার সিঁড়ি বেয়ে নীচে নামার সময় পড়ে গিয়ে আাফাত মাথায় প্রচন্ড আঘাত পায়। তবে, মাদরাসার প্রধান শিক্ষক মো. জিকিরউল্লাহর (৫০) কারণে বিষয়টি সবাই গোপন রাখে। আঘাত প্রাপ্ত হওয়ার বিষয়টি গুরুত্ব না দিয়ে উপরন্তু তিরস্কার করা হয় তাকে। এরপর অবস্থার অবনতি হলে সোমবার সকালে পরিবারের সদস্যদের জানানো হয়। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় সে। পোস্টমর্টেম শেষে বৃহস্পতিবার সকালে আদাবাড়িয়ার সিদ্দিক বাজার এলাকায় জানাজার পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এ ঘটনায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে মাদরাসার শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয়দের মাঝে।এ ব্যাপারে মাদরাসার প্রধান মো. জিকিরউল্লাহর মোবাইলফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে বাউফল থানার ওসি আল মামুন বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হলে মাদরাসার সিঁড়ি থেকে পা ফসকে পরে গিয়ে আহতের খবর জানানো হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশুটি। আমরা এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।