ইসলাম

কেমন ছিলো রাসুলের [সা.] দাম্পত্য জীবন?

ডেস্ক: রাসুল সা.-এর দাম্পত্য জীবন ছিলো শান্ত নিরম্নদ্বিগ্ন ও মধুর। রাসুলের প্রথমা স্ত্রী হযরত খাদিজা রা.-এর ব্যাপারে শোনা যায় রাসুল সা. তাঁকে মৃত্যুর পরও প্রায় স্মরণ করতেন। শুধু তাই নয়, তার সখীদের সাথেও সহৃদয় আচরণ করতেন, মাঝে মধ্যে হাদিয়া তোহফা পাঠাতেন। স্ত্রীদের মাঝে রাসুল সা. : জীবনের শেষ ভাগে মৃত্যুর আট নয় বছর পূর্বে রাসুল সা.-এর জীবনে একাধিক স্ত্রীর সম্মিলন ...

Read More »

টঙ্গীতে জোড় ইজতেমার আখেরী মোনাজাত আজ আল্লাহ্র কাছে আমল ছাড়া দুনিয়ার জিন্দিগীর কোন মূল্য নাই

  মোহাম্মদ আলী ভূঁইয়া: টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বীদের গুরুত্বপূর্ণ বয়ান ও মুসল্লি¬দের জিকির আসগারের মধ্য দিয়ে গতকাল সোমবার জোড় ইজতেমার চতুর্থ দিন অতিবাহিত হয়েছে। রোববার রাতে এশার নামাজের পর থেকে অধিকাংশ মুসল্লি¬ নফল-তাহাজ্জুদ নামাজ আদায়, তাসবিহ-তাহলিল ও জিকির আজকারের মধ্য দিয়ে সময় অতিবাহিত করছেন। তাছাড়া প্রতিটি খিত্তার জিম্মাদারের মাধ্যমে মুসল্লি¬দের তাবলিগের মূল বিষয়বস্তুর সুফল ও ধর্মীয় ...

Read More »

অভিভাবকের সাথে কনের মতানৈক্য হলে করণীয়

ডেস্ক: এখন প্রশ্ন হলো, যদি কখনো মেয়ের সাথে অভিভাবকের মতানৈক্য দেখা দেয় তখন সিদ্ধান্ত হবে কীভাবে? নিঃসন্দেহে তখনো মেয়ের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। শরয়িভাবে তার মতামতই অগ্রাধিকার পাবে। কেননা বিয়ে হচ্ছে তার, ঘর সংসার করবে সে। ইফ্ফত ইছমতের হেফাজতও তাকে করতে হবে। এখন প্রশ্ন হলো, যদি কখনো মেয়ের সাথে অভিভাবকের মতানৈক্য দেখা দেয় তখন সিদ্ধান্ত হবে কীভাবে? নিঃসন্দেহে তখনো ...

Read More »

যে বিশেষ দুটি কারণে ইসলামে একাধিক বিবাহ জায়েজ

ডেস্ক: তোমরা যাদের ভালো লাগে দুটি তিনটি চারটি করে বিয়ে করো।’ স্বাভাবিক যৌন তাড়না বিয়ের মাধ্যমে বৈধভাবে মিটাবে। বিয়ে এক থেকে চারটা পর্যন্ত একসাথে করা যায়। তবে শর্ত হলো, তাদের মাঝে সাম্য ও সমতা রক্ষা করতে হবে। একই ভাবে সবার হক আদায় করতে হবে। যৌন পবিত্রতা রক্ষায় বহুবিবাহ : জাহান্নামের নির্মম শাসিত্ম থেকে মুক্তি এবং চারিত্রিক পবিত্রতা রক্ষার একটাই উপায় ...

Read More »

নারীদের হায়েজ বন্ধকারী ঔষধ ব্যবহার করা কি জায়েজ নাকি হারাম?

ডেস্ক: হায়েয নারীদের দূষিত রক্ত। এ রক্ত প্রবাহিত হলে তখন নামাজ ও রোজা বন্ধ রাখতে হয়। এর মানে এ নয় যে, এ রক্ত প্রবাহিত করাটা অবশ্য কর্তব্য। হায়েয যেমন সবার সবসময় হয় না, তেমনি যদি কেউ হায়েয বন্ধ করার জন্যে কোনো উপায় অবলম্বন করে, তবে সেটাও দোষের নয়। হায়েয নারীদের দূষিত রক্ত। এ রক্ত প্রবাহিত হলে তখন নামাজ ও রোজা ...

Read More »

ঘুষ দিয়ে চাকরি নিলে চাকরি থেকে যে বেতন পাবে তা হালাল হবে না কি হারাম?

ডেস্ক: ঘুষ দেওয়া-নেওয়া হারাম। নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘুষদাতা ও গ্রহিতাকে অভিসম্পাত করেছেন। তাই ঘুষ দিয়ে চাকরি নেওয়া জায়েয হবে না। এতে একদিকে ঘুষ প্রদানের কবীরা গুনাহ হয়, অন্যদিকে ঘুষদাতা অযোগ্য হলে অন্য চাকরিপ্রার্থীর হক নষ্ট করারও গুনাহ হয়। তাই এমন কাজ থেকে বিরত থাকা কর্তব্য। আর ঘুষ প্রদান করা কবিরাহ গুনাহ। তাওবা করা ছাড়া কবিরাহ গুনাহ মাফ হয় ...

Read More »

জাকির নায়েকের কাছে এক হিন্দু তরুণীর কঠিন প্রশ্ন !

ডেস্ক : জাকির নায়েক অনেক বৎসর যাবৎ পবিত্র ইসলামের বিভিন্ন বিষয়ের ব্যাখ্যা দিয়ে থাকেন, আর ইসলাম সম্পর্কে মানুষের ভুল ধারণাগুলো পরিষ্কার করেন। পবিত্র কোরআন, সহীহ হাদিস ও অন্যান্য ধর্মগ্রন্থের উদ্ধৃতি দিয়ে এবং সেই সাথে যুক্তি, উক্তি ও বিজ্ঞানের সাহায্যে। তিনি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। তাকে ধর্ম নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করা হলে, তিনি বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ হতে ব্যাখ্যা দিয়ে ...

Read More »

পবিত্র কোরআন থেকে কিছু জরুরী দরকারি সূত্র…

ডেস্ক: বিশ্বাসীরা অন্তরে পবিত্র, নামাজে বিনম্র, অনর্থক আলাপ-আড্ডা থেকে বিরত, যৌনতায় সংযমী এবং আমানত ও অঙ্গীকার সম্পর্কে সতর্ক থাকে। -মুমিনুন : ১-৮ অন্যের ব্যাপারে আন্দাজ করা থেকে বিরত থাকো। ভ্রান্ত আন্দাজ গোনাহের কাজ। অন্যের ব্যক্তিগত ব্যাপারে গোয়েন্দাগিরি করো না। গীবত করো না। গীবত মৃত ভাইয়ের মাংস খাওয়ার সমান। -হুজরাত : ১২ বিত্তবান বা বিত্তহীন- প্রত্যেকেই যেন সামর্থ্য অনুসারে দান করে। ...

Read More »

নবজাতক শিশুর জন্য অবশ্য পালনীয় কিছু শরয়ি বিধান

ডেস্ক: সন্তান জন্মের ৭ম দিনে অভিভাবকের দায়িত্ব হল, সন্তানের আকীকা করা, মাথার চুল মুণ্ডন করা এবং তার সুন্দর নাম রাখা। হাদীস শরীফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, সন্তান আকীকার সাথে দায়বদ্ধ থাকে। তার পক্ষ থেকে সপ্তম দিনে পশু জবাই করবে, নাম রাখবে ও মাথা মুণ্ডন করে দিবে। প্রশ্ন : নবজাতক বাচ্চার চুল ৭ম দিন কাটা কী? ৭ম দিনের ...

Read More »

গর্ভপাত ঘটানোর ব্যাপারে শরীয়তের বিধান

ডেস্ক: গর্ভপাত ঘটানো সম্পর্কে আলেমদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হলো- শরয়ী কারণ ব্যতীত গর্ভের কোনো পর্যায়ে বাচ্চা ফেলা বৈধ নয়। গর্ভ যদি প্রথম পর্যায়ে থাকে, যার বয়স চল্লিশ দিন, অথবা জমাট বাঁধা রক্ত অথবা গোশতের টুকরা হয়ে থাকে, কিংবা গর্ভ যদি তৃতীয় স্তর পার করে ও তার চার মাস পূর্ণ হয়, আর গর্ভপাত করার কারণ যদি হয় সন্তান লালন-পালন করার কষ্ট অথবা ...

Read More »