তিন মাসে এসেছে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স

আপডেটঃ ৫:০১ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ০৩, ২০২০

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক: করোনা অতিমারির মধ্যেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাঠানো রেমিট্যান্সের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত রয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসে প্রবাসী আয় এসেছে ২ দশমিক ১৫ বিলিয়ন ডলার (২১৫ কোটি ১০ লাখ ডলার)। যা গত বছরের একই মাসের তুলনায় ৪৫ শতাংশ বেশি। এর মধ্য দিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো এক মাসে ২ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিটেন্স পেলো বাংলাদেশ। এর আগে গত জুলাই মাসে ২ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারের রেমিটেন্স এসেছিল দেশে, যা এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ।

গত বছর সেপ্টেম্বরে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের পরিমাণ ছিল ১ দশমিক ৪৮ বিলিয়ন ডলার। আর গত আগস্টে প্রবাসী আয় এসেছিল ১ দশমিক ৯৬ বিলিয়ন ডলার। এই নিয়ে চলতি অর্থবছরের প্রথম ৩ মাসে প্রবাসী আয় এসেছে প্রায় সাড়ে ৬ বিলিয়ন ডলার, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৪৯ শতাংশ বেশি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যে দেখা যায়, চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে ৬৭১ কোটি ৩১ লাখ ডলার দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪৮ দশমিক ৫৭ শতাংশ বেশি। এ অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে দেশে যে রেমিটেন্স এসেছে তা গত ২০১৯-২০ অর্থবছরের মোট রেমিটেন্সের এক-তৃতীয়াংশেরও বেশি।

গত ১ সেপ্টেম্বর অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ ৩৯ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করে। সেপ্টেম্বরের শুরুতে তা আরও বেড়ে ৩৯ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলারে ওঠে। এরপর ৭ সেপ্টেম্বর এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) জুলাই-অগাস্ট মাসের ১ বিলিয়ন ডলারের মত আমদানি বিল পরিশোধের পর রিজার্ভ ৩৯ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে আসে। রেমিটেন্সের উল্লম্ফনে ২০ সেপ্টেম্বর সেই রিজার্ভ আবারো ৩৯ বিলিয়ন ডলারের উপরে ওঠে। বৃহস্পতিবার রিজার্ভে ছিল ৩৯ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার।