যে কারণে ‘হাফ গার্লফ্রেন্ড’ ছাড়তে হয় সুশান্তকে

আপডেটঃ ২:৫৭ অপরাহ্ণ | জুন ২৫, ২০২০

বিনোদন ডেস্ক: অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যা বলিউডে স্বজনপ্রীতির বিতর্ক নতুন করে উস্কে দিয়েছে। ভক্তরা মনে করছেন, চলচ্চিত্র পরিবার থেকে না আসায় বৈষম্যের শিকার হতেন এই অভিনেতা। এমনকি এক ভিডিও বার্তায় অভিনেত্রী কঙ্গনা রাণৌত জানান, তারকা সন্তানদের সুযোগ দিতে সিনেমা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সুশান্তকে।

এরই মধ্যে সম্প্রতি লেখক চেতন ভগতের একটি পুরোনো টুইট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এতে তার লেখা বই অবলম্বনে ‘হাফ গার্লফ্রেন্ড’ সিনেমায় সুশান্তকে নেওয়ার বিষয়টি ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু পরবর্তী সময়ে মুহিত সুরি পরিচালিত সিনেমাটিতে সুশান্তের পরিবর্তে অভিনয় করেন অর্জুন কাপুর। টুইটটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে আবারো স্বজনপ্রীতির বিষয়টি আলোচনায় আসে। শুধু তাই নয়, অর্জুন কাপুরকে এ নিয়ে কটাক্ষ করছেন অনেকেই। কিন্তু সত্যিই কী স্বজনপ্রীতির কারণে ‘হাফ গার্লফ্রেন্ড’ ছাড়তে হয়েছিল সুশান্তকে?

এ প্রসঙ্গে ২০১৬ সালে এক সাক্ষাৎকারে সুশান্ত সিং রাজপুত বলেছিলেন, “হাফ গার্লফ্রেন্ড’ সিনেমার প্রস্তাব পাওয়ার অনেক আগেই আমি দিনেশ বিজনকে ‘রাবতা’ সিনেমার জন্য কথা দিয়ে রেখেছিলাম। কিছু সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় আমাদের দুটি সিনেমার শুটিং একসঙ্গে করতে বলা হয়। কিন্তু দুজন পরিচালক একই মাসে শুটিং করতে চাইছিলেন। যেহেতু দিনেশ বিজনকে প্রথমে কথা দিয়েছিলাম তাই মুহিত সুরির সিনেমা থেকে সরে যাই। এটাই সত্য। লোকে কী বলল আমি তাতে পাত্তা দিই না।”

এছাড়া ‘ফিতুর’ সিনেমায় সুশান্তের অভিনয়ের কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত এতে অভিনয় করেন আদিত্য রায় কাপুর। যদিও এ নিয়ে তার কোনো অনুশোচনা নেই বলেন জানিয়েছিলেন সুশান্ত। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছিলেন, “সবাই মনে করেছিল আমার মেন্টর অভিষেক কাপুরের ‘ফিতুর’ সিনেমা থেকে সরে গেছি। কিন্তু না। ‘ফিতুর’ আমার প্রথম সিনেমা, যেটি চিত্রনাট্য না পড়েই করতে রাজি হয়েছিলাম। তার মূল কারণ এটি অভিষেক কাপুরের সিনেমা ছিল। পরিচালক হিসেবে তিনি আমার খুবই পছন্দের।”