জুনের শেষ সপ্তাহে এসএসসির পুনঃনিরীক্ষার ফল

আপডেটঃ ২:১৭ অপরাহ্ণ | জুন ১৭, ২০২০

সি এন এপ্রতিবেদক:এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় কাঙ্ক্ষিত ফল না পেয়ে দুই লক্ষাধিক শিক্ষার্থী ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করেছে। ফল পুনঃনিরীক্ষার ফলাফল চলতি মাসের শেষ সপ্তাহেই জানা যাবে বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি সূত্রে জানা গেছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আমিনুল ইসলাম ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আমরা সকাল-সন্ধ্যা কাজ করে যাচ্ছি। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও যেহেতু ফল প্রকাশ করতে পেরেছি তাই ফল পুনঃনিরীক্ষার ফলাফল এই মাসের শেষেই জানাতে পারবো।’

চলতি বছরের ৩১ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়৷ যারা প্রত্যাশিত ফলাফল পাননি তারা গত ১ জুন থেকে ৭ জুন পর্যন্ত ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করেছে।দুই লাখ ৩৮ হাজার ৪৭১ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে এই তালিকায়। একজন শিক্ষার্থী একাধিক পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করায় এর সংখ্যা বেড়েছে। ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদনে ছিল মোট চার লাখ ৪১ হাজার ৯১৯টি খাতা।

শিক্ষার্থীরা এসএসসি পরীক্ষার তিন লাখ ৯৫ হাজার ৮৯৮টি, দাখিলের ২৮ হাজার ৪৮৪টি এবং এসএসসি ভোকেশনালের ১৭ হাজার ৫৩৭ টি খাতা পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা হয়েছে।

জানা গেছে, ঢাকা বোর্ডের ৫৭ হাজার ৭৯০ জন পরীক্ষার্থী এক লাখ ৪৬ হাজার ২৬০টি খাতা, বরিশাল বোর্ডের ২৩ হাজার ৮৫০টি খাতা, চট্টগ্রাম বোর্ডের ৫২ হাজার ২৪৬টি খাতা, কুমিল্লা বোর্ডের ৩৯ হাজার ৩০৩টি খাতা, দিনাজপুর বোর্ডের ৪০ হাজার ৭৫টি খাতা,যশোর বোর্ডের ৩৪ হাজার ২৮৫টি খাতা, ময়মনসিংহ বোর্ডের ৩১ হাজার ৩৩১ টি খাতা,রাজশাহী বোর্ডের ৪৪ হাজার ৬১টি খাতা এবং সিলেট বোর্ডের ২৩ হাজার ৭৯০টি খাতা পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা হয়েছে।

চলতি বছরের গত ৩ ফেরুয়ারি এবারের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হয়। ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলে তত্ত্বীয় পরীক্ষা। আর ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা। গত ৩১ মে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এবার গড় পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ, যা গতবছর ছিল ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ। এ বছর মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে এক লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮ জন, যা গত বছর পেয়েছিল এক লাখ পাঁচ হাজার ৫৯৪ জন। (ঢাকাটাইমস/১৬জুন/টিএটি/জেবি)