বারহাট্টায় মাাদ্রসাছাত্রী ধর্ষিত, একজন গ্রেপ্তার

আপডেটঃ ৮:২৩ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৩, ২০২০

 নেত্রকোনা প্রতিনিধি: নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার সিংধা ইউনিয়নের সিংধা পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবেু তালেবের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমানের (২৮) দ্বারা ১১ বছরের এক মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষিত হয়েছে। এ ঘটনায় রোববার রাতে ধর্ষিতার ভাই বাদী হয়ে বারহাট্টা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।
পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ধর্ষকের মা ফাতেমা বেগমকে গ্রেপ্তার করে ও ধর্ষিতাকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাপাতালে পাঠিয়েছে। সোমবার পর্যন্ত ধর্ষক মোস্তাফিজুর রহমানকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ
পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, জেলার বারহাট্টা উপজেলার সিংধা পশ্চিমপাড়া গ্রামের সিংধা নূর উদ্দিন রহমতুল্লাহ কওমী মাদ্রাসার ২য় শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রী শনিবার রাতের খাবার খেয়ে নিজ বাড়িতে বসত ঘরে ঘুমিয়েছিল। একই গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমান রোববার ভোরে ওই ছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করে মূখে কাপড় গুজে উঠিয়ে নিয়ে বাড়ির পাশে ফিসারীর পাড়ে ধর্ষণ করে। সকালে বাড়ির লোকজন ছাত্রীকে উদ্ধার করে। খবর পেয়ে পুলিশ ছাত্রীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়। এ ঘটনায় ছাত্রীর ভাই বাদী হয়ে মোস্তাফিজুর রহমান ও সহযোগিতা করার অভিযোগে তার মা ফাতেমা বেগমের বিরুদ্ধে রোববার রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। পুলিশ ফাতেমা বেগমকে রোববার গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠায়।
বারহাট্টা থানার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মিজানুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ধর্ষনে সহযোগিতার অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধর্ষককে গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে। ঘটনার পরপরই সে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।