হঠাৎ জাপার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাদ

আপডেটঃ ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ০৫, ২০২০

সি এন এ প্রতিবেদক: হঠাৎ রাজধানীর কাকরাইলে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হাজির হয়েছেন জাতীয় পার্টি (জাপা)-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বড় ছেলে রাহগির আল মাহে সাদ এরশাদ। বুধবার (৪ মার্চ) কাকরাইলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেমেই নেতাকর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হন তিনি। বাবার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে তার আত্মার মাগফিরাত কামনায় মোনাজাত করেন সাদ। এরশাদের মতো আজীবন দলের নেতাকর্মীদের পাশে থাকার অঙ্গীকারও করেন তিনি।

বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টায় রাজধানীর কাকরাইলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসেন সাদ এরশাদ। খবর পেয়ে আগে থেকেই ছাত্রসমাজ, যুবসংহতিসহ জাপার অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাকে স্বাগত জানাতে কাকরাইলের মোড়ে অবস্থান নেন। ঠিক সোয়া ৫টার দিকে তিনি কাকরাইলে পৌঁছালে নেতাকর্মীরা স্লোগান দিয়ে তাকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়ে আসেন। এ সময় তারা সাদকে ফুল দিয়ে তাকে বরণ করে নেন। পরে তিনি দলীয় নেতকর্মীদের নিয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এরশাদের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।

এই সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও মহানগর উত্তর সেক্রেটারি শফিকুল ইসলাম সেন্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য (রওশন) ইকবাল হোসেন রাজু, রেজাউল করিম, জসিম উদ্দিন ভুঁইয়া, মির্জা ইকবাল, বেলাল আহমেদসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। পরে ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) জাতীয় পার্টির অফিস কক্ষে বসে নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন সাদ।

নেতারা সাদ এরশাদকে এরশাদের উত্তরসূরি হিসেবে শক্তভাবে দলের হাল ধরার আহ্বান জানান। তারা বলেন, এই পার্টির জন্য বর্তমান বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদের বিশাল ভূমিকা রয়েছে। তিনি জেল খেটেছেন। তিনি দলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। এখন থেকে তার নেতৃত্বে তারা সাদকে মাঠে দেখতে চান বলেও জানান। নেতারা দলে শৃঙ্খলা নেই বলেও অভিযোগ করেন।

জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য ইকবাল হোসেন রাজুর পরিচালনায় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে সাদ এরশাদ বলেন, ‘আমি যেমন প্রয়াত এরশাদের সন্তান, আপনারাও। আমরা এক পরিবারের সন্তান হিসেবে জাতীয় পার্টিকে সামনে নিয়ে যাবো। আমার বাবা যেমন আজীবন আপনাদের পাশে ছিলেন, আমিও আপনাদের পাশে আছি, থাকবো।’

সাদ আরও বলেন, ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আমি শিশুকালে বাবা-মা’র সঙ্গে জেল খেটেছি। বাবার মুক্তির জন্য মা রাজপথে আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন। সেই থেকে আপনাদের সঙ্গে আমার আত্মার সম্পর্ক। বাবার আদর্শ লালন করে সবাই মিলেমিশে দেশবাসীর সহযোগিতায় জাতীয় পার্টিকে এগিয়ে নেবো।’

প্রায় দেড় ঘণ্টা অবস্থান করে কাকরাইলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে গুলশানে বাসায় ফেরেন সাদ এরশাদ।

হঠাৎ কাকরাইলে কেন? জানতে চাইলে মুঠোফোনে সাদ এরশাদ বলেন, ‘হঠাৎ নয়, নেতাকর্মীদের সঙ্গে আমার সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে কাকরাইলে গিয়েছিলাম।’ সামনের দিনেও দলীয় কার্যক্রমে সক্রিয় থাকবেন বলে জানান সাদ।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাদ এরশাদের উপস্থিতিতে দলের নেতাকর্মীদের মধ‌্যে উচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে। তবে, দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের অনুসারী নেতাকর্মীদের সেখানে দেখা যায়নি।

রংপুর সদর আসনে সংসদ সদস‌্য নির্বাচিত হওয়ার পর চাচা জিএম কাদেরের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির দলীয় কার্যক্রমে তেমন সক্রিয় ছিলেন না সাদ এরশাদ। তবে, নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঠিকই যোগাযোগ রক্ষা করে চলতেন তিনি। জাপার নতুন কমিটিতে মাতা রওশন এরশাদকে ‘প্রধান পৃষ্ঠপোষক করায়’ ভেতরে ভেতরে মনক্ষুণ্ন হন সাদ। এমনকি জাপার নতুন কমিটিতে সাদসহ সিনিয়র নেতাদের অবমূল্যায়ণের অভিযোগ ওঠে। এসব কারণে প্রকাশ্য চাচা জিএম কাদেরের বিরুদ্ধে অবস্থান না নিলেও দলীয় কার্যক্রম থেকে বিরত ছিলেন তিনি।