ঢাবি-জাবি-বুয়েট না এলেও অটল বাকিরা

আপডেটঃ ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০

সি এন এ প্রতিবেদক: আগামী বছর থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে ভর্তি পরীক্ষা হতে যাচ্ছে।

দেশের ২৮টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা এ বিষয়ে একমত হলেও, এ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ এখনও নিশ্চিত নন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

তবে তারা না এলেও বাকি সব বিশ্ববিদ্যালয় মিলে এই পরীক্ষার আয়োজন করবে বলে জানিয়েছেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ।

তিনি বলেন, সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে ২৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য একমত হয়েছেন। আশা করছি ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ থেকেই পরীক্ষাটি আয়োজন করতে পারব। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এবং বুয়েটের বিষয়ে বলতে পারছি না। তারা না আসলেও আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত জানিয়েছি। আমরা সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নিতে প্রস্তুত।

এই পরীক্ষাকে সমন্বিত বা গুচ্ছ নয় বরং ‘কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা’ বলে ডাকা হবে,- মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে বুধবার ইউজিসিতে একটি সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। যেখানে ঢাবি, বুয়েট ও জাবির উপাচার্যের উপস্থিত থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানোর কথা রয়েছে। সেখানেই স্পষ্ট হবে তারা এ প্রক্রিয়ায় আসবেন কি না।

জানা গেছে, ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা উচ্চ মাধ্যমিকের পাঠ্যসূচির আলোকে প্রণীত পৃথক প্রশ্নপত্রে এই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। তিনটি শাখার বিভিন্ন বিষয়ে ভর্তি পরীক্ষা হবে। সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষার কেন্দ্র থাকবে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত কলেজগুলোর স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষাও এর আওতায় হবে।

আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যেই ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে। মেধাতালিকায় অন্তর্ভুক্ত শিক্ষার্থীরা সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের চাহিদার আলোকে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে। এমসিকিউ বাদ দিয়ে সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের মাধ্যমে পরীক্ষা নেয়া হবে।

জানতে চাইলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে আমরা এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে যেতে পারিনি। আমাদের একাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠক আছে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি। সেখানেই আলোচনা শেষে এ বিষয়ে আমরা চূড়ান্ত মতামত দিতে পারব।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেছেন, বুধবার এ বিষয়ে একটি বৈঠক হবে। তবে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে এখনো আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। আমাদের একাডেমিক কাউন্সিল আছে। একাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠকে সবার সম্মতিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এ বিষয়ে মতামত নিতে বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলামকে একাধিকবার ফোন করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘আগামী বছর থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তারা এই প্রক্রিয়ায় অংশ নিবে কিনা তা এখনও নিশ্চিত না। বুধবার বিষয়টি নিয়ে আমরা ইউজিসিতে যাব, সেখানেই এটা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।