জোসনা এখন কোথায় যাবেন?

আপডেটঃ ১০:০৫ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ০২, ২০২০

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : নয় বছর আগে মারা যান মুক্তিযোদ্ধা বুধন মিয়া। এরপর তার দ্বিতীয় স্ত্রী আয়েশা আক্তার জোসনা দুই সন্তান নিয়ে অসহায় হয়ে পড়েন। উপায়ন্তর না পেয়ে জেলার শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশনের পূর্ব কলোনির পরিত্যক্ত এক ঘরে আশ্রয় নেন।

বুধন মিয়ার প্রথম সংসারের সন্তানরা জংশনের কাছে ভাগুনীপাড়া গ্রামের বাড়িতে বসবাস করেন।

বুধন মিয়ার মৃত্যুর পর পরিত্যক্ত প্লাস্টিক কুড়িয়ে দোকানে বিক্রি করে আসছিলেন জোসনা। তিনি বলেন, প্রথম সংসারের সন্তানদের বাধায় স্বামীর মুক্তিযোদ্ধা ভাতা তিনি পান না। কেউ তাদের খোঁজও রাখেন না।

জোসনার বড় ছেলে কাজল মিয়া (১৫) জানায়, সে ফল বিক্রি করে দিনে দুই/তিনশত টাকা পায়। এই টাকায় সংসার চলে। মায়ের শরীর ভালো না থাকায় কাজে যেতে পারছে না।

টাকার অভাবে তার ও তার ছোট ভাইয়ের লেখাপড়া হয়নি বলে জানায় কাজল।

অচিরে উচ্ছেদ অভিযানে পরিত্যক্ত এই ঘরটি ভেঙে ফেলা হবে। এই সংবাদ পেয়ে ভেঙে পড়েছেন জোসনা। এখন তো তার মাথার ওপর অন্তত ছাদ আছে, কয়েক দিন পর তাও থাকবে না। তিনি জানেন না; সন্তানদের নিয়ে কোথায় যাবেন, কী করবেন?