অসুস্থ বোনকে নিয়ে চঞ্চলের আবেগঘন স্ট্যাটাস

আপডেটঃ ৫:৪২ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৮, ২০২০

বিনোদন ডেস্ক :গুণী অভিনয়শিল্পী চঞ্চল চৌধুরী। তার অভিনয় লক্ষ-কোটি ভক্তের মন জয় করেছে। ব্যক্তিগত জীবনে পরিবারের প্রতি তার দায়িত্ববোধ ও ভালোবাসার কথা শোবিজের অনেকেই জানেন।

পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে চঞ্চল চৌধুরী সবার ছোট। বড় বোন লিলি চৌধুরী এখন শারীরিকভাবে অসুস্থ। যাকে তিনি ‘খুকদি’ বলে ডাকেন। প্রিয় বোনের অসুস্থতা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন এই অভিনেতা।

‘অনেক তো অর্জন হলো জীবনে কিন্তু বোধটা কোথায় গেল? একটু ভাবুন। আপনাদের দোয়ায় অনেক সাবলম্বী মানুষ আমি। পেশাগত অর্জন আমার যোগ্যতার চেয়ে অনেক বেশি। কিন্তু মানুষ হিসেবে আমি এখন কোথায় দাঁড়িয়ে আছি, ইদানীং সেটা খুব ভাবি। কারণ বয়স বাড়ছে। একবার ভাবুন— আপনাকে কতজন ভালোবাসেন আর ঘৃণা করেন? ভাবছেন, সেই হিসাবের দরকারটাই বা কী?’

এরপর এই অভিনেতা ভালোবাসা বা ঘৃণার হিসাবের  প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে বলেন, ‘আপনি জানেন না, কখন আপনার জীবনে দুর্যোগ আসবে! আপনি অথবা আপনার আপন কোনো মানুষ, কখন কোনো দূরারোগ্য অসুখে পড়বেন। তখন কিন্তু সবার দোয়া চাইবেন। সম্প্রতি এমনই এক পারিবারিক দুর্যোগের মধ্যে আমরা সময় পার করছি। সে কারণে প্রায় একমাস আমি আমার পেশাগত কাজে অনিয়মিত।’

চঞ্চল চৌধুরীর ভাই-বোনদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ আন্তরিক সম্পর্কের কথা অনেকেই জানেন। বিভিন্ন উৎসব পার্বণে তারা একত্রিত হন। তারা পরস্পরের বিপদে-আপদে পাশে থাকেন। বিষয়টি উল্লেখ করে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘আমরা শুধু একজন আরেকজনের সুখের জন্য, ভালোর জন্য সবকিছু দিতে চাই। আমাদের পরিবারে এই দেবার প্রতিযোগিতা অনেক দিনের। আমার এই বোনটা অসুস্থ। পিঠাপিঠি ভাই-বোন আমরা। ওর চিকিৎসা চলছে। যে আন্তরিকতা নিয়ে ডাক্তারগণ চিকিৎসা করছেন আমার বিশ্বাস, বোনটা সুস্থ হয়ে উঠবে। পেশাগত কারণে এতটা ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম যে, বাবা-মা, ভাই-বোন, নিকটজন, এদের খোঁজটাও ভালো করে নেয়া হয়ে ওঠেনি বেশ কয়েক বছর। সত্যি কথা বলতে কি, যত কথাই বলি পরিবার বা আপনজনকেই যদি ভালোবাসতে না পারি, তাদের প্রতি দায়িত্ব পালন করতে না পারি, সমাজ অথবা দেশকে কীভাবে ভালোবাসব? বোধ এটুকুই।’

সব শেষে এই অভিনেতা ভক্তদের প্রতি আবেদন জানিয়ে বলেন, ‘আগে আপন মানুষগুলোকে ভালোবাসুন, তাদের প্রতি দায়িত্বশীল হোন। সবাই এই কাজটুকু করলে পুরো দেশটাকে ভালোবাসা হবে। প্রিয় মানুষের সংখ্যা বাড়লে, বুকের ভেতর সুখের পরিমাণ বাড়বে। আমার বোনটার জন্য সবাই আশীর্বাদ করবেন। আমি সবসময় সবার মঙ্গল কামনা করি।’