মদন পৌর সদরের প্রধান সড়কের বেহাল দশা

আপডেটঃ ৬:১৪ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

আল মাহবোব আলম ,সি এন এ নিউজ,মদন (নেত্রকোনা): সংস্কারের অভাবে দীর্ঘদিন ধরে নেত্রকোনার মদন পৌরসভার নেত্রকোনা-খালিয়াজুড়ি পাকা সড়কে দুটি স্থানে কাদা-পানি জমে ১ কিলোমিটার রাস্তার পিচ সুরকি উঠে বেহাল দশা সৃষ্টি হয়েছে।
পৌর সদরের চৌরাস্তা মোড়ে কেন্দুয়া ও বাড়িভাদেরার এলজিইডির দুটি সড়ক উ”ু করে নির্মাণ করায় ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন প্রধান এ রাস্তাটি কাদা পানি জমে অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

অপর দিকে মদন বাজারের মুক্তিযোদ্বা কমপ্লেক্স এর চৌরাস্তা মোড়ে কাদা পানি জমে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

এ সড়কে প্রতিদিন এই মৌসুমে মিনি কক্সবাজার নামে খ্যাত উচিতপুর ঘাটে দেশের বিভিন্ন অ ল থেকে শতশত পর্যটকের সমাগম ঘটে। কিন্তু রাস্তাটির বেহাল দশা থাকায় পর্যটকগণ, স্থানীয় বাসিন্দা, স্কুল,কলেজ ,মাদ্রাসার শিক্ষক -শিক্ষার্থী,দোকান পাটের ক্রেতা-বিক্রেতা, অফিসগামী কর্মকর্তা কর্মচারী ও জনসাধারণ নিত্য এ দূর্ভোগের স্বীকার হচ্ছেন।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান মদন উপজেলায় আগমনের আগের দিন নেত্রকোনা সড়ক ও জনপদ বিভাগের উদ্যোগে উক্ত দুই স্থানে সড়কে গর্ত জায়গায় ইট-সুরকি ফেলে কাদা-পানি ডাকার চেষ্টা করে। কিন্তু কিছু দিন যেতে না যেতেই বৃষ্টির পানিতে ইট সুরকি উঠে রাস্তাটির বেহাল দশা সৃষ্টি হয়েছে। কিছু সৌখিন পথচারী ওই স্থানে এসে কাদা পানি জন্য সামান্য পথ অতিক্রম করতে অটো রিক্সা চলাচল করতে দেখা চায়। এমনকি উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মসূচি রাস্তার বেহান দশার কারণে সীমিত ভাবে করা হয়।

বৃহস্পতিবার(১৯ সেপ্টেম্বর) সরজমিনে দেখা গেছে, অফিস, থানা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাজার, শপিং মলে যাতায়াতের দুই স্থানে সড়কে অসংখ্য খানা-খন্দে বৃষ্টিতে কাদা পানি জমে একাকার হয়ে গেছে। পায়ে হাটার কোনো সুযোগ নেই।

এ ব্যাপারে পৌর সভার স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা অভিযোগ করে বলেন, সচিব স্যার আসার সময় একবার এ সড়কের গর্তে ইট সুরকি ফেলা হলেও আর না ফেলায় রাস্তায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। আগের রাস্তা সংস্কারের অনিয়ম, অন্যদিকে সড়কে পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় বর্ষার পানি জমে সড়কে বেহাল দশার সৃষ্টি হচ্ছে। একটু বৃষ্টি হলেই হাটু পানি জমে যায় এ সড়কে। ফলে নতুন বাজারসহ কয়েকটি প্রধান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কেন্দ্রীয় মসজিদে যেতে যাতায়াতকারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

নেত্রকোনা সড়ক ও জনপথ বিভাগের সহকারি প্রকৌশলী রাজিব কুমার জানান, এ রাস্তাটির গুরুত্ব অনুধাবণ করে টেন্ডারের প্রক্রিয়াধীন আছে। রুটিন মেন্টিনের মালামালের ধারা নিয়মিত সংস্কার করা হচ্ছে।

পৌর মেয়র মোঃ আব্দুল হান্নান তালুকদার শামীম জানান, এ সড়কের জনদূর্ভোগ সম্পর্কে নেত্রকোনা সড়ক ও জনপথ বিভাগে একাধিকবার যোগাযোগ করেছি। তারা সড়কটি সংস্কার করবে বলে আমাকে আশ্বস্থ করেছেন।