সব এমপি করেছেন, আমিও করেছি : রুমিন ফারহানা

আপডেটঃ ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ | আগস্ট ২৬, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারের কাছে কোনো কিছুই চাননি জানিয়ে ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেছেন, আমি রাষ্ট্রীয় সুযোগ চেয়েছি। আমি স্পষ্টভাষায় বলতে চাই, এই সরকারের কাছ থেকে এক সুতা জমিও আশা করি না, চিন্তাও করি না। এটা একটা প্রসিডিউর, একটা ফরমালিটিজ, যেটা সব এমপি করেছেন, আমিও করেছি।

বিএনপির আন্তর্জাতিক সহ-সম্পাদক ও নারী সংরক্ষিত আসনে বিএনপির একমাত্র সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা প্রশ্ন করেন-প্লট চেয়ে করা আবেদনটি কি অবৈধ? নাকি অনৈতিক?

সংবাদ মাধ্যমে আসা তার চিঠি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার প্রশ্ন হলো চিঠিটা কি অবৈধ? কোন আইনে অবৈধ? এটা কি অনৈতিক? কোন আইনে অনৈতিক? এটা তো রাষ্ট্রীয় চিঠি। আমি তো সরকারের কাছ থেকে কিচ্ছুই চাইনি। আমার বেতনটা যেমন রাষ্ট্রীয়, আমার এই এপ্লিকেশনও রাষ্ট্রীয়।

রুমিন বলেন, ফেইসবুকে আমার যে চিঠিটি ভাইরাল হয়েছে, সেটা না অবৈধ, না অনৈতিক।

তিনি জানান, সংসদ সদস্যরা চারটি রাষ্ট্রীয় অধিকার পেতে পারেন। ৫ বছরের জন্য একটি অ্যাপার্টমেন্ট, বেতন-ভাতা, শুল্কমুক্ত একটি গাড়ি কেনার সুবিধা এবং রাষ্ট্র থেকে জায়গার জন্য আবেদন করতে পারেন। আমিও সংসদ সদস্য। আমারও এসব রাষ্ট্রীয় সুবিধা পাওয়ার অধিকার আছে।

রুমিন বলেন, যেই সংসদ সদস্য হবেন সেই রাষ্ট্র থেকে এই সুযোগ পাবেন। সেই সুবাধে আমি একটি আবেদনপত্র দিয়েছি। শুধু আমি একা নই, অন্তত তিন‘শ থেকে সাড়ে তিন‘শ এমপি এপ্লিকেশন দিয়েছেন। প্রশ্ন হলো-আমার চিঠিটা মন্ত্রণালয় থেকে বেরুলো কি করে? যেখানে আমার ব্যক্তিগত টেলিফোন নম্বর দেয়া আছে।

অভিযোগ করে তিনি বলেন, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে সরকার যে অবৈধ সুবিধা দিয়েছে, ওটাকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য তার বৈধ এপ্লিকেশনকে নোংরাভাবে প্রচার করা হচ্ছে।