নেত্রকোনায় নানা আয়োজনে পালিত হয়েছে জাতীয় শোক দিবস

আপডেটঃ ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ | আগস্ট ১৮, ২০১৯

মোনায়েম খান, সি এন এ নিউজ, নেত্রকোনা: “রক্তে ভেজা সিক্ত মাটি বিবর্ণ এই ঘাস বুকের মাঝে রাখা আছে বঙ্গবন্ধুর লাশ” ১৫ আগস্ট বাঙালি জাতির ইতিহাসের বেদনাবিধুর কলষ্কিত বর্বরোচিত নৃশংতম হত্যাকান্ডের দিন । যে দিন আকাশ থেকে ঝড়েছিল রক্তবৃষ্টি । সেদিন বাঙালি জাতি হারিয়ে ছিল হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী স্মরণে জেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীগণ জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন ও জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ঐতিহাসিক মোক্তার পাড়া মুক্তমে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে বিনব্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি, হাবিবা রহমান খান শেফালী, জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়,পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সী , পৌর মেয়র আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম খান , উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক তফসির উদ্দিন খান ,জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ও বিজ্ঞ জিপি, মোঃ আমিরুল ইসলাম খান , যুগ্ম সম্পাদক নুর খান মিঠু ,সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট ইফতেকার উদ্দিন মাসুদ ,জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ড মোঃ নুরুল আমিন ,জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সেক্রেটারী গাজী মোজাম্মেল হোসেন টুকু, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাসুদ খান জনি ও যুগ্ম আহ্বায়ক জামিউল ইসলাম খান জামি , জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মারুফ হাসান খান অভ্র, সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান লিটু, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ড.শওকত আকবর ফকির ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার জহির লিটন ,জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়জুর মোর্শেদ খান অমি, সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান জনি, সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল আওয়াল শাওন ,এই দিকে জেলার পেশাজীবি সংগটনের মধ্যে জাতিয় বিদুৎ শ্রমিক লীগ (সি,বি,এ) সভাপতি মোঃ সাখাওয়াত হোসেন ও যুগ্ম সম্পাদক মাহাবুব আলম রিপন , সড়ক ও জনপথ শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন জেলা সংসদের সভাপতি মোঃ আয়ুব আলী ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবুল হাসান ,জেলা কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারী (সি,বি,এ) সভাপতি মোঃ আকরাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুজিবুর রহমানসহ বিভিন্ন স্কুল কলেজ ,সরকারি – আধা সরকারি ও রাজনীতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পুস্প মাল্য অর্পন করেন। দিবসটি উপলক্ষে চিত্রাষ্কন প্রতিযোগীতা সহ দিনব্যাপী আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে কাঙ্গলী ভোজের আয়োজন করা হয়।