মদনে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে কৃষক খুন,আহত- ৩

আপডেটঃ ১১:৫২ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১০, ২০১৯

মদন (নেত্রকোনা) সংবাদদাতা: মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় নেত্রকোনার মদনে ফেরদৌস(৫৫) নামের এক কৃষক খুন হয়েছে। এ সময় ৩ জন আহত হয়। আহত তরিকুল ইসলাম, রুনা আক্তার ও আব্দুল আওয়াল কে মদন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত ফেরদৌস উপজেলার গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের পদমশ্রী মনিকা গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে উপজেলার গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের পদমশ্রী মনিকা গ্রামের ফেরদৌসের বাড়ির পিছনে গোড়াটে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই সাদেক মিয়া বাদী হয়ে ১৪ জনকে আসামি করে ওই রাতেই মদন থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আসামি বাচ্চু (৫০) কে রাতেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
মামালা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পদমশ্রী মনিকা গ্রামে নিহত ফেরদৌসের জমিতে মিঠা পানির মাছ বায়না দিয়ে আটকে রাখে। ওই স্থানে একই গ্রামের ইউপি সদস্য বকুল মিয়ার ছেলেরা টর্চ লাইটের আলোতে মাছ ধরতে গেলে ফেরদৌসের লোকজন বাধা দেয়। পরে তারা মাছ না ধরে বাড়িতে চলে যায়। ছেলেদের মাছ ধরতে নিষেধ করার সংবাদ শুনে বকুল মেম্বার তার লোকজন নিয়ে ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ঘটনাস্থলে পৌছেঁ ফেরদৌসসহ তার লোকজনের উপর হামলা চালায়। এ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ফেরেদৌসসহ ৪ জন আতহ হয়। আহতদের মদন হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ফেরদৌসকে মৃত ঘোষনা করেন। বাকী আহতরা মদন হাসপালে ভর্তি রয়েছে। এ ব্যাপারে মদন থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য শনিবার নেত্রকোনার মর্গে প্রেরণ এবং গ্রেফতারকৃত বাচ্চু মিয়াকে নেত্রকোনার কোর্টে প্রেরণ বরা হয়েছে।
এ ব্যাপারে মদন থানার ওসি মোঃ রমিজুল হক জানান, মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় পদমশ্রী মনিকা গ্রামে একজন নিহত ও তিন জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য শনিবার নেত্রকোনার মর্গে প্রেরণ এবং আসামি বাচ্চুকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।