নিজ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে নরপশু ধর্ষক পিতা নরসিংদীতে গ্রেপ্তার

আপডেটঃ ৬:২৭ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৫, ২০১৯

এম.এ.সালাম রানা,সি এন এ নিউজ,নরসিংদীঃনরসিংদীতে স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে নিজের ১২ বছর বয়সী মেয়েকে মাসাদীক ধরে ধর্ষণের অভিযোগে নরপশু ধর্ষক পিতা মমিন মিয়া (৩৫) নামের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।নরপশু ধর্ষক পিতা কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরি নারায়ণপুর এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের পুত্র।রবিবার (১৪ জুলাই) দুপুরে নরপশু ধর্ষক পিতা নরসিংদী সদর উপজেলার শিল্প অঞ্চ্যল মাধবদী পৌর এলাকার আনন্দী মহল্লা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। মাধবদী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু তাহের দেওয়ান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।পুলিশ জানায়, মমিন মিয়া পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি।রাজমিস্ত্রি পেশার সুবাধে গত ৫ বছর ধরে মাধবদী থানার আনন্দী এলাকার হোসেন মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতো।তাঁর স্ত্রী ও ভুক্তভোগী মেয়ের মা মাধবদীতে একটি পাওয়াললুম ফ্যাক্টরিতে কাজ করেন।মায়ের অনুপস্থিতিতে গত ২ মাস পূর্বে নিজ কিশোরী মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে নরপশু পিতা মমিন মিয়া।ধর্ষণের বিষয়টি মেয়ে তাঁর মাকে অবগত করিলে লোকলজ্জার ভয়ে মা বিষয়টি গোপন রাখেন।এরপর থেকে প্রায় সময় নিজ মেয়েকে ধর্ষণ করতে থাকে নরপশু পিতা।রবিবার সকালে নরপশু পিতা পুণরায় মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করলে দুপুরে মেয়েটির মা মাধবদী থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করেন।আর এই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্ত নরপশু ধর্ষক মমিন মিয়াকে গ্রেপ্তার করে।থানায় ওই কিশোরীর মা বলেন, আগেও মেয়েকে যখন এই নরপশু ধর্ষণ করেছে তখন মেয়ে আমাকে ঘটনাটি জানিয়েছে।তখন তাকে আমি জিজ্ঞাসা করলে সে ক্ষমা চেয়ে, জীবনে আর এ ধরনের কাজ করবে না বলে অঙ্গীকার করে।পরে মেয়ের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আর লোক লজ্জার ভয়ে ঘটনা প্রকাশ করিনি।কিন্তু আজ (রবিবার) সে আবার যখন একই কাজ করল তখন তাকে আর ক্ষমা করা যায় না। আমি তাঁর সর্বোচ্চ শাস্তি কামনা করছি।মাধবদী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু তাহের দেওয়ান সাংবাদিকদের বলেন, ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।এ ঘটনায় ওই কিশোরীর মা বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোব প্রকাশসহ দোষীর বিচার দাবী জানান নরসিংদীর সুশীল সমাজ।