চুল পড়া কমানোর সহজ উপায়

আপডেটঃ ৯:৪৬ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ১৪, ২০১৯

সি এন এ  নিউজ,ডেস্ক : কেবলমাত্র পুরুষেরই চুল পড়ে না, এ সমস্যাটি অনেক নারীর মধ্যেও রয়েছে। যদি লক্ষ্য করেন যে আপনার চুল পাতলা হয়ে যাচ্ছে, তাহলে একটি ঘরোয়া কৌশল আপনাকে সাহায্য করতে পারে। এ ঘরোয়া পদ্ধতি হলো স্কাল্প ম্যাসাজ (মাথার ত্বকে ম্যাসাজ): এটি চুলের বিকাশ বৃদ্ধি করতে পারে।

ম্যানহাটনের আপার ইস্ট সাইডের প্রাইভেট প্র্যাকটিসের ডার্মাটোলজিস্ট ও স্কিন রুলস: ট্রেড সিক্রেটস ফ্রম অ্য টপ নিউ ইয়র্ক ডার্মাটোলজিস্ট’র লেখক ডেব্রা জালিম্যান বলেন, ‘স্কাল্প ম্যাসাজ মাথার ত্বক ও চুলের গ্রন্থিকোষে রক্তপ্রবাহ বাড়াতে পারে।’

ইপ্লাস্টি নামক ম্যাগাজিনের ২০১৬ সালের জানুয়ারি সংখ্যায় প্রকাশিত একটি গবেষণায় পাওয়া যায়, প্রতিদিন শুধুমাত্র চার মিনিটের স্কাল্প ম্যাসাজ জিনের কার্যক্রম বাড়িয়ে চুলের বিকাশ বৃদ্ধিতে অবদান রাখে এবং চুল পড়া ও প্রদাহের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত জিনের কার্যক্রম হ্রাস করে। আরো বেশি কিছু? হ্যাঁ, স্কাল্প ম্যাসাজে এ গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের চুলের পুরুত্বও বৃদ্ধি পেয়েছিল।

ডালাসে অবস্থিত আরমানি মেডিক্যাল হেয়ার রিস্টোরেশনের মেডিক্যাল পরিচালক আব্রাহাম আরমানি বলেন, ‘স্কাল্পে হালকা ম্যাসাজ চুলের গ্রন্থিকোষ ও চুলের গোড়ায় রক্তপ্রবাহ বাড়িয়ে চুল পড়া কমাতে ভূমিকা রাখে। ম্যাসাজ স্কাল্পের অতি ক্ষুদ্র ধমনীকে প্রসারিত করে চুলের গ্রন্থিকোষে রক্তপ্রবাহ বাড়ায় এবং এভাবে চুলের বিকাশ চক্রের মেয়াদ বৃদ্ধি পায়।’

চুল পড়া বন্ধের স্কাল্প ম্যাসাজে স্ট্রেস বা মানসিক চাপও হ্রাস পায়- এটা মনে রাখা ভালো যে স্ট্রেস চুল পড়ার হার বৃদ্ধি করতে পারে। ডা. জালিম্যান বলেন, ‘রক্তপ্রবাহের বৃদ্ধিতে মাথার ত্বকে কেবলমাত্র অধিক পুষ্টিই সরবরাহ হয় না, এটি আপনাকে শিথিলও করে।’ ২০১৬ সালের অক্টোবরে জার্নাল অব ফিজিক্যাল থেরাপি সায়েন্সে প্রকাশিত একটি গবেষণা এটিকে সমর্থন করছে। এ গবেষণায় পাওয়া যায়, প্রতিসপ্তাহে দু’বার স্কাল্প ম্যাসাজ স্ট্রেস হরমোনের মাত্রা, রক্তচাপ ও হার্ট রেট হ্রাস করে- এসবকিছু মানসিক বা শারীরিক চাপের সময় বেড়ে যায়।

কখন স্কাল্প ম্যাসাজ করবেন?

আপনি গোসলের সময় যখন শ্যাম্পু ব্যবহার করেন তখন ম্যাসাজ করতে পারেন অথবা শ্যাম্পু ব্যবহারের পূর্বে চুল শুষ্ক থাকা অবস্থায়ও ম্যাসাজ করতে পারেন। ইলিনয়েসের উইলোব্রুকে অবস্থিত জেসি চুং এমডি ডার্মাটোলজি অ্যান্ড লেজার সেন্টারের পরিচালক জেসি চুং বলেন, ‘স্কাল্প ম্যাসাজ করতে দু’হাত ব্যবহার করলে অন্তত তিন মিনিট সময় দেয়া উচিত যাতে মাথার ত্বকের কোনো অংশ বাদ না যায়। কোনো তেল বা সিরাম ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। কিন্তু কিছু লোক অ্যারোমাথেরাপি পছন্দ করেন। স্কাল্প ম্যাসাজের সময় ল্যাভেন্ডারের মতো শিথিলকারক সেন্ট ও ইউক্যালিপটাস বা পুদিনার মতো সতেজকারক সেন্ট রক্তপ্রবাহ বৃদ্ধি করতে পারে।’

কিভাবে স্কাল্প ম্যাসাজ করবেন?

একাজটি করতে আপনার ফিঙ্গারটিপ বা আঙুলের ডগা ব্যবহার করুন। ডা. চুং বলেন, ‘এটি রক্তপ্রবাহকে উদ্দীপ্ত করার জন্য যথেষ্ট।’ মাথার সামনে থেকে ম্যাসাজ শুরু করে পেছন পর্যন্ত পৌঁছান। এ প্রসঙ্গে ডা. জালিম্যান বলেন, ‘মাথার সামনে থেকে ম্যাসাজ শুরু করলে লিম্ফ্যাটিক ড্রেনেজ অথবা লসিকার তরল প্রবাহ ভালোভাবে উদ্দীপ্ত হয়। এছাড়া ম্যাসাজ করলে ত্বক উষ্ণ হয়, যা স্কাল্পে রক্তপ্রবাহ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।’ এটা ভুলে গেলে চলবে না যে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে চুল পড়ে যাওয়া কোনো মারাত্মক মেডিক্যাল সমস্যার লক্ষণ হতে পারে। তাই আপনার চুল অস্বাভাবিক হারে পড়তে থাকলে চিকিৎসক দ্বারা মূল্যায়ন করুন।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট