সৌদি যুবরাজের বোনের বিচার শুরু ফ্রান্সে

আপডেটঃ ৯:৪৩ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ১০, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : এক শ্রমিককে পেটানোর অভিযোগে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের বোনের বিচার শুরু হয়েছে ফ্রান্সের আদালতে। মঙ্গলবার প্যারিসের একটি আদালতে এ বিচার শুরু হয় বলে জানিয়েছে  বার্তা সংস্থা এএফপি।

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে যুবরাজের বোন প্রিন্সেস হাসসা বিনতে সালমানের প্যারিসের বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে সংস্কার কাজ চলছিল। ওই সময় এক শ্রমিক অ্যাপার্টমেন্টের ভেতরের ছবি তুলেছিল। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওই শ্রমিককে পেটানোর জন্য দেহরক্ষীকে আদেশ দিয়েছিলেন হাসসা।

প্রিন্সেস হাসসা অবশ্য তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তার দাবি, পশ্চিম প্যারিসে অবস্থিত তার অ্যাপার্টমেন্টের ছবি তুলে সেটি বিক্রি করার পরিকল্পনা করেছিল ওই শ্রমিক।

ওই শ্রমিকটি অভিযোগ করেছেন, তাকে বেঁধে রাখার জন্য দেহরক্ষীকে নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রিন্সেস। তাকে পেটানো হয় এবং তার যন্ত্রপাতি জব্দ করে রাখা হয়। পরে তাকে প্রিন্সেসের পায়ে  চুমু দিয়ে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করা হয়।

ওই শ্রমিকের বরাত দিয়ে ফরাসি সংবাদ সাময়িকী লা পয়েন্ট জানিয়েছে, প্রিন্সেস তার দেহরক্ষীর উদ্দেশে চিৎকার করে বলেছিলেন, ‘এই কুকুরকে হত্যা কর, তার বেঁচে থাকার অধিকার নাই।’

সৌদি সংবাদমাধ্যমে দাতব্য কর্মকাণ্ড ও নারী অধিকার নিয়ে প্রচারণার জন্য ৪০ বছরের প্রিন্সেস হাসসা ব্যাপকভাবে প্রশংসিত নারী।

২০১৮ সালের মার্চে প্রিন্সেস হাসসার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে সশস্ত্র সহিংসতা উস্কে দেওয়া, কারো ইচ্ছার বিরুদ্ধে আটকে রাখার জন্য প্ররোচিত করা এবং চুরির অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া তার দেহরক্ষীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র সহিংসতা, চুরি, হত্যার হুমকি দেওয়া এবং ইচ্ছার বিরুদ্ধে আটকে রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে।