‘সরকারের বিরোধিতা করলেই কি দেশদ্রোহী?

আপডেটঃ ৫:৫২ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৭, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:মোদি সরকার নিয়ে ফের সরব বলিউডে জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানা আজমি। মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে এক অনুষ্ঠানে শাবানা বলেন, ‘কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে যেই কথা বলছে, তাকেই দেশদ্রোহী তকমা বসিয়ে দেয়া হচ্ছে। কোন দেশের সরকার নির্ভুল হতে পারেনা। তাকে সমালোচনা শোনার ক্ষমতা রাখতে হবে। কিন্তু ভারতের বর্তমান সরকার সেই সমালোচনা সহ্য করতে পারে না।’

বর্ষীয়ান এই অভিনেত্রী বলেছেন, ‘দেশের স্বার্থে প্রশ্ন তোলা উচিত। সেই প্রশ্নের জবাব দিতে বাধ্য সরকার। কিন্তু মানুষের স্বাধীনতা হরণ করা হচ্ছে। স্বাধীনভাবে কথা বলার জায়গাটা বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে সুকৌশলে। যদি কেউ কেন্দ্র সরকারের ত্রুটি বা ভুল নিয়ে কথা বলে, তবে কি সে দেশদ্রোহী?

তবে তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের নাম উল্লেখ করেননি। কৌশলে নিজের বক্তব্যে বুঝিয়ে দিয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের দিকেই তার অভিযোগের আঙ্গুল। আগেও একাধিকবার মোদি সরকারের বিরুদ্ধে তাকে সরব হতে দেখা গেছে।

শাবানা আজমি আরও জানান, দেশপ্রেম দেখানোর জন্য কোনও দলের সার্টিফিকেটের দরকার নেই তার। সাধারণ মানুষের কাছে তার অনুরোধ, ভয় না পেয়ে সত্যটা সামনে আনুন। প্রয়োজনে একজোট হয়ে কথা বলুন, প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গড়ে তুলুন। কারণ গণতন্ত্রের মৌলিক অধিকার হলো মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতা।

ভারতের মত দেশের নিজেকে গর্বিত মনে করা এই বলিউড অভিনেত্রী বলেন, তিনি ভাগ্যবতী এ কারণে যে তার জন্মস্থানের নাম ভারত। কারণ এ রকম সুন্দর দেশ গোটা বিশ্বের আর কোথাও নেই। তবে রাজনৈতিক ক্ষুদ্র স্বার্থের কাছে মানবিকতা ও মানুষের প্রয়োজন হারিয়ে যাচ্ছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া পোস্টের শিকার হন শাবানা আজমি। নরেন্দ্র মোদি সরকার ফের ক্ষমতায় আসলে দেশ ছাড়বেন এমন কথা তার নামে প্রচার হয়। তবে সেটি যে ভুল পরে তা জানা যায়।

ইন্ডিয়া ট্যুডের ফ্যাক্ট চেকিংয়ে জানা যায়, শাবানা আজমিকে নিয়ে ভাইরাল হওয়া এই পোস্টটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। শাবানা আজমি নিজেও সংবাদমাধ্যমকে জানান, তিনি এমন কোনও মন্তব্য করেননি। তার নামে অপপ্রচার করা হচ্ছে। এ ছাড়া তার যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছিল সেটিও এক বছরের পুরোনো।