ধর্মপাশায় প্রধান শিক্ষকের মারধরে ছাত্র আহত

আপডেটঃ ১১:৫৬ অপরাহ্ণ | জুন ২৩, ২০১৯

ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে এক ছাত্রকে মারধরে করে আহত করেছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। সে জয়শ্রী ইউনিয়নের বাদেহরিপুর গ্রামের আ. ছালেকের ছেলে। হিরণ আহমেদ ওই বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র। রোববার দুপুর দুইটার দিকে ওই বিদ্যালয়ের একটি শ্রেণি কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, জয়শ্রী উচ্চ বিদ্যালয়ে গত শনিবার থেকে ১০ম শ্রেণির প্রথম সাময়িকপরীক্ষা শুরু হয়েছে। কিন্তু হিরণ কোন পরীক্ষার ফি না দিয়েই পরীক্ষা দিতে শুরু করে। রবিবার দুপুর দুইটায় হিরণ বাংলা ২য় পত্র পরীক্ষা দিতে বিদ্যালয়ের আসে। প্রধান শিক্ষক তার কাছে জানতে চান সে পরীক্ষার ফি দিয়েছে কিনা। হিরণ জানায় পরীক্ষার ফি তার শ্রেণি শিক্ষকের কাছে দিয়েছে । প্রধান শিক্ষক বিষয়টি শ্রেণি শিক্ষকের কাছে জানতে চান । কিন্তু শ্রেণি শিক্ষক জানায় সে কোন ফি জমা দেয়নি। হিরণ মিথ্যে কথা বলায় প্রধান শিক্ষক তার বাবাকে বিদ্যালয়ে নিয়ে এসে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য বলেন। হিরণ শিক্ষককে জানায় সে তার বাবাকে নিয়ে বিদ্যালয়ে আসতে পারবে না। এ সময় প্রধান শিক্ষক রেগে গিয়ে হিরণকে বেত দিয়ে আঘাত করে॥ এতে হিরণের বাম হাতের কব্জি থেকে আঙ্গুলে মারাত্মক আঘাত লাগে এবং আঙ্গুল ফেঠে রক্ত বের হতে থাকে। হিরণকে ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থা কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
হিরণের চাচাতো ভাই তানভীর আহমেদ বলেন, ‘ শিক্ষকের সাথে হিরণের মিথ্যে কথা বলা উচিৎ হয়নি। আমাদের জানালে আমরা তার বিচার করতে পারতাম। এভাবে আঘাত করে তাকে রক্তাক্ত করা উচিত হয়নি।