অবৈধ সম্পদ : নূর হোসেনের স্ত্রীর বিরুদ্ধে চার্জশিট

আপডেটঃ ৯:৩৪ পূর্বাহ্ণ | মে ২২, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক:নারায়ণগঞ্জে সাত খুন মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নূর হোসেনের স্ত্রী রোমা হোসেনের বিরুদ্ধে প্রায় সাড়ে ৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় চার্জশিট অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোমা হোসেনের বিরুদ্ধে মোট ৫ কোটি ৪৩ লাখ ২২ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে।  এর আগে নূর হোসেনের বিরুদ্ধে ২ কোটি ৮১ লাখ ১১ হাজার ৮১৩ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন দায়ে চার্জশিট দিয়েছিল সংস্থাটি।

মঙ্গলবার অনুমোদনকৃত চার্জশিটে রোমা হোসেনের বিরুদ্ধে স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ মিলিয়ে আরো ৪ কোটি ২ লাখ ৭০ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগ আনা হয়েছে। দুদকের জনসংযোগ দপ্তর এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

২০১৬ সালে ১ আগস্ট রমনা মডেল (ডিএমপি) থানায় তৎকালীন উপপরিচালক মো. জুলফিকার আলী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছিলেন।

দুদক জানায়, রোমা হোসেনের সম্পদ বিবরণীতে ৪ কোটি ২ লাখ ৭০ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করে দুদকে মিথ্যা তথ্য সংবলিত সম্পদ বিবরণী দাখিল এবং ৫ কোটি ৪৩ লাখ ২২ হাজার ১১৬ টাকার জ্ঞাত আয়ের উৎসবহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও ভোগদখলে রাখার অপরাধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৬(২) ধারা এবং ২৭(১) ধারায় চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে কমিশন।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নূর হোসেনের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের মামলায় চার্জশিট দেয় সংস্থাটি।

যেখানে নূর হোসেনের ৩ কোটি ৮৮ লাখ ৪৭ হাজার ৮৬৯ টাকার সম্পদ পাওয়া গেছে।  কিন্তু মাত্র ১ কোটি ৭ লাখ ৩৬ হাজার ৫৬ টাকার উৎস পাওয়া যায়।  অর্থাৎ তিনি ২ কোটি ৮১ লাখ ১১ হাজার ৮১৩ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন।  এ ছাড়া, ২ কোটি ৪৫ লাখ ৪ হাজার ১৭২ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন।

২০১৪ সালের এপ্রিলে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর নজরুল ইসলামসহ সাতজন খুনের ঘটনার পর নূর হোসেন ভারতে পালিয়ে যান।  দুদক ওই বছরের ২৯ মে তার সম্পদের অনুসন্ধানে নামলেও পরে এই কার্যক্রম অনেকটা স্থবির হয়ে পড়ে।  ২০১৫ সালের ১২ নভেম্বর ভারত থেকে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার পর দুদকের অনুসন্ধানেও গতি আসে। তারই ধারাবাহিকতায় মামলা ও চার্জশিট দেওয়া হলো নূর হোসেন ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে।