ঢাকা এখন ফাঁকা

আপডেটঃ ১১:০৫ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ২৮, ২০১৮

সি এন এ প্রতিবেদক: কোটি মানুষের পদচারণায় মুখরিত যানজটের চরম ভোগান্তির চিরায়ত রূপের সেই ঢাকা এখন ফাঁকা।

কোথাও কোলাহল বা দীর্ঘ ট্রাফিক জ্যাম নেই। মূলত দেশজুড়ে বিরাজ করছে নির্বাচনী আমেজ। আর এ কারণেই পছন্দের প্রার্থিকে ভোট দিতে গ্রামে ছুটে যাচ্ছেন রাজধানীর অস্থায়ী বাসিন্দারা। নির্বাচনের ছুটির সাথে সাপ্তাহিক ছুটি যোগ হওয়ায় লম্বা ছুটি পেয়েছেন তারা। ফলে রাজধানী শহর এখন অনেকটাই ফাঁকা।

রাজধানী ঢাকায় প্রায় দুই কোটি মানুষের বসবাস। ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ মানুষই ভাড়া বাসায় অস্থায়ীভাবে বসবাস করেন। যাদের সিংহভাগই নিজ নিজ এলাকার ভোটার।

নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার থেকে রবিবার পর্যন্ত টানা তিন দিন ছুটি পেয়েছেন সরকারি চাকরিজীবীরা। দুই দিন সরকারি ছুটি এবং ভোটের দিন রবিবার সাধারণ ছুটি।

রাজধানীর মানুষের অন্যতম প্রধান পরিবহন বাস ও রিকশা আধিক্য নেই বললেই চলে। বাস, মিনিবাস, কাউন্টার সার্ভিস ও অন্যান্য বাস সার্ভিস চলছে নামে মাত্র।

শুক্রবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পুরো রাজধানীতেই এমন চিত্র দেখা গেছে। রাজধানীর যেসব ফুটপাতে হকারদের কারণে চলাচল করা যেত না, সেসব স্থান দিয়ে এখন চলা যায় সাচ্ছন্দে।

একদিকে জাতীয় নির্বাচন অন্যদিকে ঢাকা ফাঁকা হওয়ায় পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার পাশাপাশি নেয়া হয়েছে বিশেষ নজরদারি। পুলিশের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা বলয়। প্রস্তুত রয়েছে পুলিশসহ অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীও। যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতেও প্রস্তুত তারা।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে যা যা প্রয়োজন সব ব্যবস্থাই গ্রহণ করা হয়েছে। ভিআইপি ও কূটনৈতিক এলাকায় থাকছে বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা। সতর্কতামূলক আরও কিছু নতুন কৌশল অবলম্বন করে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রাখা হয়েছে রাজধানী। নির্বাচনের সহিংসতা এড়াতেও ইতোমধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ঢেলে সাজানো হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি সেনাবাহিনী, বিজিবির সদস্যরাও ঢাকায় টহল দিচ্ছে।