সৌদিতে প্রথমবারের মতো পুরুষদের সঙ্গে নাচলেন নারীরা

আপডেটঃ ৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ | ডিসেম্বর ২৫, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:সৌদি আরবে এখন ভরা শীত। আর এই শীতেই সেখানে ঘটে গেল বিরল ঘটনা। চরম রক্ষণশীল বলে পরিচিত সৌদি আরবে এই প্রথমবারের মতো কোনো মিউজিক কনসার্টে একসঙ্গে নাচলেন পুরুষ ও নারীরা।

সম্প্রতি ফরাসি ডিস্কো জকি ডেভিড গুয়েত্তার একটি কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছিল সেখানে। সেখানে মঞ্চের আশপাশে ছিল যুবক-যুবতীদের ভিড়। ডেভিডের গানের সুরে একসঙ্গে নাচলেন তারা।

সৌদির ছেলে-মেয়েদের একসঙ্গে নাচের বিরল ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ছড়িলে পড়লে মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়ে যায়। তবে বিধি-নিষেধের বেড়াজাল ভেঙে বেরিয়ে আসার জন্য অগণিত মানুষ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাদের।

১৯৩২ সালে রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশটিতে কঠোর শরিয়া আইন চলছে। এই আইনের কারণে সৌদি নারীদের চলাফেরার স্বাধীনতা অনেকটাই সীমাবদ্ধ। আইনগত ব্যাপারে মেয়েদের যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি নিতে হয়। এর সঙ্গে ছিল গাড়ি চালানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা। তবে সম্প্রতি সেই নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হয়।

সৌদি সমাজের এই পরিবর্তনটা মূলত দৃশ্যমান হয়েছে বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আব্দুলআজিজ আল সৌদের কিছু পদক্ষেপে। তিনি সৌদি নারীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ সম্প্রসারণের পাশাপাশি তাদের সমান ভোটাধিকার দিয়েছেন।

নারীদের ভোটাধিকার দেওয়ার পাশাপাশি ২০১১ সালেই ১৫০ সদস্যের সুরা কাউন্সিলে প্রথমবারের মতো নারীদের যুক্ত করার ঘোষণা দেন বাদশাহ আব্দুল্লাহ। ঘোষণার দুই বছর পর ২০১৩ সালে ৩০ জন নারীকে সুরা কাউন্সিলের সদস্য মনোনীত করে ন্যূনতম এক-পঞ্চমাংশ আসন নারীদের জন্য সংরক্ষণেরও ব্যবস্থা করেন তিনি। ২০১৫ সালে সৌদি আরবের ইতিহাসে প্রথমবারের মত নারীরা পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ও ১২ জন নির্বাচিত হন।

২০১৩ সালে বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেন সৌদি নারী রাহা মোহাররাক (২৫)। রাহা শুধু প্রথম সৌদি নারীই নন, আরব বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে কম বয়সী এভারেস্ট জয়ীও তিনি।

২০১৭ সালে প্রথমবারের মত সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা হয়। নারী অধিকারের প্রতি সম্মান জানিয়ে রিয়াদে নারী দিবসের অনুষ্ঠানে রাজ পরিবারের সদস্যরাও যোগ দেন।

সৌদিতে প্রচলিত আইন অনুযায়ী বিদেশি নারী পর্যটকদেরও জন্যও পোশাকে আবৃত থাকা বাধ্যতামূলক। তবে দেশটি এখন বলছে, নতুন যেসব পর্যটনকেন্দ্র করা হবে সেখানে এ ধরনের কোনো বিধিনিষেধ থাকবে না। আন্তর্জাতিকমানের এই পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে থাকবে সিনেমা, থিয়েটারসহ বিনোদনের সব সুবিধা।

সৌদি আরবের নিজস্ব আইনে নারীদের ওপর নানান বিধিনিষেধের থাকতে হয়। গাড়ি চালানো নিষিদ্ধ এবং পুরুষ আত্মীয়ের অনুমতি ছাড়া কোথায় ভ্রমণও করতে পারে না নারীরা। নারীরা বাড়ির বাইরে গেলে তাদের ত্বক ও চুলকে ঢেকে রাখতে হয়। যদিও এ নিয়ম অভিন্নভাবে প্রয়োগ করা হয় না। ২০১৭ সালের জুলাইয়ে একটি গ্রামে মিনি স্কার্ট পরে ঘোরাফেরা করার জন্য গ্রেফতার করা হয়েছিল এক নারীকে। পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

তবে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতায় আসার পর থেকে সে দেশে সামাজিক পরিবর্তন শুরু হয়েছে। প্রচুর ইসলামিক বিধিনিষেধের বাঁধন আগলা হয়েছে। গুয়েত্তার কনসার্ট অন্তত তেমনই সাক্ষ্যই দিচ্ছে।

সূত্র: এএফপি, আনন্দবাজার