মদন উপজেলা চেয়ারম্যানসহ দেড়শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীর নামে তিন মামলা

আপডেটঃ ৪:৪০ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

আল মাহবোব আলম,সি এন এ  নিউজ,মদন (নেত্রকোনা) : নেত্রকোনার মদন উপজেলা বিএনপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম আকন্দ ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের এপিএস মির্জা হায়দায় , শামছুল হক সহ দেড়শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক তিনটি মামলা হয়েছে।
বুধবার রাতে কাইটাইল ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠিক সম্পাদক মোঃ নূরে আলম ও পৌর যুবলীগের যুগ্নআহবায়ক মোঃ কিবরিয়া বাদী হয়ে এ তিনটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়,উপজেলার বটতলা বাজারে তিন রাস্তা মোড়ে পাকা রাস্তার উপর,বটতলা পাকা রাস্তার ওপর ও বাজারের আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে আওয়ামী লীগসহ দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে নৌকার পক্ষে নির্বাচনী আলোচনাকালীন সময়ে সরকারকে নিয়ে বিদ্বেষ মূলক কথা বলা,বিভিন্ন স্থাপনা ভাংচুর,ক্ষতি সাধন,লুটপাট,অগ্নি সংযোগ, অটো গাড়ী ভাংচুর, নির্বাচন কমিশনকে বিব্রত করার মত অর্ন্তঘাত মূলক কর্মকান্ড

ঘটিয়ে আতংকে সৃষ্টি করায় মদন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম আকন্দ, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের এপিএস মির্জা হায়দার , শামছুল হক,উপজেলা বিএনপি সভাপতি মোঃ এন আলম সহ দেড়শতাধিক নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা চারশতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক তিন মামলা হয়েছে । যাহা মামলা নং ০৬/১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইন,মামলা নং ০৭ /৩২৬,৫০৬ দন্ড বিধি আইন,মামলা নং ০৮/১৯০৮ সনের বিস্ফোরক (২০০২) আইনে সংশোধনী এ তিনটি মামলা রজু করা হয়েছে।

মদন উপজেলা বিএনপির সভাপতি এন আলম বলেন,এ সব মিথ্যা গায়েবী মামলা হচ্ছে মূলত বিএনপি ও সমর্থকদের ভয়ভীতি হয়রানি আতংক সৃষ্টি করা ছাড়া আর কিছুই নয়। এসব মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

ওসি মোঃ রমিজুল হক জানান,এ তিনটি মামলায় এ পর্যন্ত ৪জনকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।