বারান্দা খেলাই কাল হল মদনে রাব্বি খুনের রহস্য উন্মোচন

আপডেটঃ ৫:২১ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৬, ২০১৮

আল মাহবোব আলম ,মদন (নেত্রকোনা)সংবাদাদাতা: বারান্দা খেলাই কাল হল রাব্বি খুনের। নেত্রকোনার মদন উপজেলার গোবিন্দশ্রী বারঘরিযা গ্রামের বরফ কলের শ্রমিক রাব্বি খুনের রহস্য তিন দিন পর উন্মোচন হয়েছে। নেত্রকোনার অতিরিক্ত বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়ার ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোমবার গ্রেফতারকৃত সুমন ১৬৪ ধারার জবান বন্দিতে হত্যা কান্ডের তথ্য প্রকাশ করেন।
পুলিশের প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে ,সম্প্রতি গোবিন্দশ্রী গ্রামে দাড়িবান্দা খেলা নিয়ে রাব্বি ও রঞ্জিতের মধ্যে ঝগড়া হয়। এ সময় রঞ্জিত, রাব্বিকে দেখে নিবে বলে হুমকি দেয়।এরই জের ধরে ১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার গোবিন্দশ্রী গ্রামের গাছতলা ব্রিজে বসে একই গ্রামের রঞ্জিত, সুমন, নূরনবী ও হিমেল- রাব্বিকে হত্যার পরিকল্পনা করে। সেই পরিকল্পনা মোতাবেক ২ নভেম্বর শুক্রবার রাতে রঞ্জিত, সুমন, নূর নবী,হিমেল ও আটপাড়া উপজেলার উত্তম একত্র হয়ে রাব্বিকে নিয়ে কদমশ্রী ভূঁইয়াহাটি গ্রামে গান শুনতে যায়। সেখান থেকে রাত ১১ টায় রাব্বির কর্মস্থল সোয়েব বরফ মিলে সবাই এসে একজন হিজড়াকে নিয়ে আনন্দ ফূর্তি করে। দুই ঘন্টা পর সবাই চলে গেলে রাব্বি বরফ মিলে ঘুমিয়ে যায়। পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক গভীর রাতে পুনরায় ষড়যন্ত্রকারী পাচঁ জন একত্রে বরফ মিলে ঢুকে প্রথমে ঘুমের মধ্যে রঞ্জিত কোদাল দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। পরে সবাই মিলে তাকে নৃশংস ভাবে খুন করে। এভাবেই সোমবার নেত্রকোনা অতিরিক্ত বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়ার ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৬৬ ধারা জবান বন্দীতে খুনের বর্ননা দেন সুমন। তবে মদন উপজেলার নূরু নবী ও আটপাড়া উপজেলার উত্তম পলাতক রয়েছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোঃ নূরুল আমিন বলেন,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মদন ও খালিয়াজুরী সার্কেল মোঃ জামাল উদ্দিন ও ওসি মোঃ রমিজুল হক স্যারের নির্দেশে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রোববার ঘটনা স্থলে যাই। ব্যাপক অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে রঞ্জিত, সুমন ও হিমেলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। জিজ্ঞাসাবাদে সুমন খুনের ঘটনার বর্ণনাদেন। সোমবার নেত্রকেনার অতিরিক্ত বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়ার ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে তিনজনকে হাজির করলে সুমন ১৬৪ ধারা জবান বন্দীতে এ তথ্য প্রকাশ করেন। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত হত্যা মামলা হয়েছে।