টি-ব্যাগে যতো সমস্যা

আপডেটঃ ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ | অক্টোবর ২৪, ২০১৮

লাইফস্টাইল ডেস্ক: প্রতিদিনই কয়েক কাপ চা পান না করলে যেন দিনটাই পানসে হয়ে যায় আমাদের। আর চা পানের ক্ষেত্রে টি-ব্যাগটাও একটা বড় ভূমিকা রাখছে এখন।

চা শরীরের জন্য বেশ উপকারি হলেও যে টি-ব্যাগ ব্যবহার করি আমরা, তা কিন্তু স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতির কারণ হতে পারে। চায়ে ক্যাটেচিন, ক্যাফেইন, এল-থিয়ানাইন নামের তিনটি বায়ো অ্যাকটিভ উপাদান থাকে। এসব উপাদান শরীরকে চাঙা রাখে। এছাড়া শরীর মুটিয়ে যাওয়া, হার্ট অ্যাটাক/স্ট্রাক ঝুঁকি, দুর্বল হাড়, দাঁতের ক্ষয়, হজমের সমস্যা দূর করে। তবে আপনি কি জানেন টি-ব্যাগ কতোটা ক্ষতিকর হতে পারে?

* ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ায় : কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, টি-ব্যাগে এপিক্লোরোহাইড্রিন নামের কারসিনোজেন বা ক্যানসার তৈরি করা উপাদান থাকে। পানিতে টি-ব্যাগ ছাড়ার পর এই উপাদান সক্রিয় হয়ে উঠে। অবশ্য টি-ব্যাগের একাধিক কাপ চা পান করলে তেমন ক্ষতি হয় না। তবে নিয়মিত টি-ব্যাগ দিয়ে চা পান করলে শরীরের জন্য তা বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে। আরো ভয়ের বিষয় হলো, অনেক টি-ব্যাগ নাইলন বা প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি করা, যা ক্যানসার সৃষ্টির জন্য দায়ী।

* টি-ব্যাগে চায়ের ভিন্নতা থাকে না : খোলা চা পাতা সাধারণত চার ধরনের হয়- ব্ল্যাক, হোয়াইট, গ্রিন ও ওলোং। কিন্তু টি-ব্যাগে এ ধরনের ভিন্নতা পাওয়া যায় না।

* মাটি ও পোকাও থাকে : অনেক ক্ষেত্রে টি-ব্যাগের ভেতরে মাটি ও ছোট পোকার অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। তাই যেহেতু আপনি জানেন না টি-ব্যাগের ভেতর কি আছে, তাই তা এড়িয়ে চলা ভালো।

* টি-ব্যাগের চা তেতো : ব্ল্যাক বা গ্রিন চায়ে নির্দিষ্ট গন্ধ থাকে, কিন্তু টি-ব্যাগে ডাস্ট ও অন্য কেমিক্যাল থাকে বলে তা চায়ের স্বাদ তেতো করে দেয়।

* ওজন কমাতে ব্যর্থ হয় টি-ব্যাগ: গ্রিন টি ওজন কমায়, এটা অনেকটা পরীক্ষিত। তবে গ্রিন টি-ব্যাগের চা পান করে আশানুরূপ ফল পাওয়া যায় না। কারণ টি-ব্যাগে গ্রিন টি প্রক্রিয়াজাত করার কারণে এটি তার অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, নিউট্রেশন হারায়। তাই গ্রিন টি-ব্যাগ ব্যবহার করে চা পান করে আপনি কোনো ভালো ফলই পাবেন না। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা তাই গ্রিন টি-ব্যাগ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন। শুধু গ্রিন টি-ব্যাগই না, অন্য সব টি-ব্যাগও যথাসম্ভব এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া