অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে কৃষির ভূমিকা মুখ্য : রাষ্ট্রপতি

আপডেটঃ ১০:৩২ অপরাহ্ণ | জুলাই ২২, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ :বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন ও স্থিতিশীল সংরক্ষণে কৃষির ভূমিকা আজও মুখ্য। এ জন্য কৃষি ও কৃষকের উন্নয়ন অপরিহার্য বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) ৫৭ বছর পূর্তি উদযাপন এবং হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন।

রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাকৃবি ও বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলী আকবরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জসিমউদ্দিন খান। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এমিরেটাস অধ্যাপক ড. এম এ সাত্তার মন্ডল।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ধান, গম, ভুট্টা, সবজি, মাছ ও মাংস উৎপাদনে বিশ্বের অন্যান্য দেশের গড় উৎপাদনকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশ অব্যাহতভাবে এগিয়ে চলেছে। এটি সম্ভব হয়েছে বর্তমান সরকারের বাস্তবমুখী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে। বিশেষ করে কৃষি ভর্তুকি, কৃষকদের অনুকূলে সার, সেচ, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বাবদ ব্যাপকভিত্তিতে কৃষি সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি কৃষি বিজ্ঞানি ও কৃষিবিদদের নিরলস প্রচেষ্টার ফলে এই অভাবনীয় সাফল্য অর্জন সম্ভব হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি আশাবাদ ব্যক্ত করেন, বর্তমান সরকার গৃহীত কৃষি নীতিমালা সুষ্ঠু বাস্তবায়নে দক্ষ কৃষিবিদ ও কৃষি বিজ্ঞানি তৈরিতে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আগামী দিনগুলোতে আরও বেশি যত্নবান হবে।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে ছিলেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কৃষিবিদ মো. আবদুর রাজ্জাক এমপি, সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আব্দুল মান্নান এমপি ও নির্বাহী সম্পাদক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা।

পরে সাড়ে ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশের প্রথম হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন রাষ্ট্রপতি। বিকেল ৫টায় মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বাকৃবি অ্যালামনাই আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।