হাজেরা দেখতে চায় প্রধানমন্ত্রী ও হৃদয়বান ব্যক্তিদের কাছে সহযোগিতার আবেদন

আপডেটঃ ৫:২৬ অপরাহ্ণ | জুন ২৪, ২০১৮

মাহবুব আলম আরিফ, মুরাদনগর (কুমিল্লা) সংবাদদাতা:স্বামী শফিকুল ইসলাম অর্থের অভাবে চিকিৎসা করতে না পেরে ২০১৫ সালের জুলাই মাসে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে হাজেরা ও তার দুই সন্তান রেখে মৃত্যু বরণ করেন। মৃত্যুর পর দুই সন্তানকে নিয়ে কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামে স্বামীর বাড়ীতেই থাকেন হাজেরা(৩২)।
ছেলে মেয়ের লেখা পড়ার খরচ যোগাতে ও পেটের দায়ে মানুষের বাড়িতে ঝি এর কাজ করে সংসার চালিয়ে আসছিলো সম্বলহীন হাজেরা। ছেলে মাজহারুল ইসলাম কাজিয়াতল রহিম রহমান মোল্লা উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেনীতে ও কন্যা সানজিদা খানম সপ্তম শ্রেনীতে অধ্যয়ন করছে। গত মে মাসে পাশের বাড়িতে ধান মাড়াইয়ের কাজ করতে গিয়ে ধান ছিটকে পড়ে তার বা চোখে। এতে মারাত্মক ক্ষতের সৃষ্টি হয়। যা বর্তমানে ক্ষতটি বড় আকার ধারণ করেছে। চিকিৎসক চোখটি অপারেশনের পরামর্শ দিয়েছেন। যার খরচ হবে প্রায় লক্ষাধীক টাকা।
হাজেরা বেগম জানান, বর্তমানে ক্ষতটি ক্রমেই বড় হয়ে চোখের সাদা প্রলেপটি একপাশ দিয়ে চোখের মনি পর্যন্ত ডেকে পড়েছে। এতে বন্ধ হয়ে গেছে বা চোখ। নিচের অংশে তৈরি হয়েছে ক্ষত। ক্ষতের কারনে যন্ত্রণায় এখন স্থির থাকতে পারছিনা। রাতে ঘুমাতেও পারছিনা। বেশকিছু দিন হলো কাজে যাওয়াও বন্ধ রয়েছে। আমিই পরিবারের মধ্যে এক মাত্র উপার্জনকারী হওয়ায় এখন সংসার চালাতে কষ্ট হয়ে পরেছে। ছেলে মেয়ের লেখা পড়াতো দুরের কথা। এর মধ্যে আবার চিকিৎসা চালানো আমার পক্ষে সম্ভব হচ্ছেনা। বর্তমানে সন্তানদের নিয়ে মানবত জীবনযাপন করছি। বিধবা হাজেরার চিকিৎসার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ দেশের সকল আপামর হৃদয়বান ব্যক্তিদের কাছে সাহায্য কামনা করেছেন। তার আকুতি আপনাদের একজন ভাই হিসেবে যতটুকু সম্ভব আমাকে সহায়তা-সহমর্মিতা করে আমার অপারেশসহ পরিবারের সদস্যদের সহায়তা করবেন। কেউ সহযোগিতা করতে চাইলে তার ব্যক্তিগত বিকাশ মোবাইল নাম্বার ০১৮৭২০৮৮২৯০-তে যোগাযোগ করতে পারবেন।