দুর্ঘটনায় বাস খণ্ড-বিখণ্ড, নিহত ১৬

আপডেটঃ ৪:১২ অপরাহ্ণ | জুন ২৩, ২০১৮

সি এন এ নিউজ,রংপুর :গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় যাত্রীবাহী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশের গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে ১৬ যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ জন। দুর্ঘটনায় বাসটি খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে গেছে।

শনিবার ভোর ৫টার দিকে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কে পলাশবাড়ী উপজেলা সদরের বাঁশকাটা ব্র্যাক মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পলাশবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহমুদুল আলম জানান, অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে আলম এন্টারপ্রাইজ নামের যাত্রীবাহী বাসটি (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪- ৬৪২২) ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁও যাচ্ছিল। বাসটি ভোর ৫টার দিকে বাঁশকাটা-ব্র্যাক মোড় এলাকায় পৌঁছলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এতে বাসটি মহাসড়কের পাশে পরপর দুটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই আটজন ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো আটজনের মৃত্যু হয়। আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ যাত্রী। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

হতাহতদের অধিকাংশের বাড়ি ঠাকুরগাঁও, নীলফামারী ও রানিশংকৈল এলাকায়। আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

গাইবান্ধা ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আমিরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে গাইবান্ধা, গোবিন্দগঞ্জ ও পীরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট উদ্ধার তৎপরতা চালায়। বাসের নিচ থেকে আটটি লাশ উদ্ধার করা হয়।

গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি আকতারুজ্জামান জানান, ১৬টি লাশ হাইওয়ে পুলিশের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। নিহতদের পরিচয় উদ্ধার ও লাশ হন্তান্তরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

এদিকে, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র, পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কাওছার মো. নজরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে ১০ হাজা টাকা করে অনুদান ঘোষণা করা হয়।